করোনাভাইরাস: মৃত্যুর মিছিলে যোগ হলো আরো ৯৬ জন

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২০ ১৪২৬,   ০৯ শা'বান ১৪৪১

Akash

করোনাভাইরাস: মৃত্যুর মিছিলে যোগ হলো আরো ৯৬ জন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:১২ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১২:১৬ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাস আতঙ্কে কাঁপছে চীন। প্রতিষেধকবিহীন এ ভাইরাস চীনের পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ক্রমেই ছড়িয়ে পড়ছে। সময়ের ব্যবধানে এ ভাইরাসে আক্রান্তের ও মৃতের সংখ্যাও দিন দিন বেড়েই চলেছে।

শনিবার এ ভাইরাসে নতুন করে ৯৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে হুবেই প্রদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ২ হাজার ৩৪৬ জন। আর বিশ্বব্যাপী এই ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৪৫৮ জনে।

রোববার দেশটির স্বাস্থ্য কমিশনের বরাত দিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এ খবর জানিয়েছে।  

হুবেই স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শনিবার নতুন করে আরো ৬৩০ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে প্রদেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে সাড়ে ৭৭ হাজার দাঁড়িয়েছে। এছাড়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৪০ হাজার ১২৭ জন রোগী। যাদের মধ্যে ১ হাজার ৮৪৫ জনের অবস্থা আশঙ্কজনক। আর ১৫ হাজার ২৯৯ জন চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

সিএনএনের তথ্যানুযায়ী, চীনের মূল ভূখণ্ডে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ৪৪১ জন। চীনের মূল ভূখণ্ডের বাইরে ১৭ জনসহ মোট মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ৪৫৮ জন। এরমধ্যে ইরানে পাঁচজন, জাপানে তিনজন এবং হংকং, ইতালি ও দক্ষিণ কোরিয়ায় দুজন করে মৃত্যু হয়েছে।

এছাড়া তাইওয়ান, ফিলিপাইন ও ফ্রান্সে একজন করে করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু হয়েছে। চীনের মূল ভূখণ্ডসহ বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীর মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৮ হাজার ৫৭২ জনে।

চীনের পর প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে এখন সবচেয়ে বেশি আতঙ্কে দক্ষিণ কোরিয়া। দেশটিতে এখন এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গত বৃহস্পতিবার দক্ষিণ কোরিয়ায় দুইজনের মৃত্যু হয়। দেশটিতে নতুন করে আরো ১২৩ জনের দেহে করোনার সন্ধান মিলেছে। এ নিয়ে মোট ৪৩৩ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি নিশ্চিত করেছে দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ।

এদিকে, করোনার উৎপত্তিস্থল চীনের উহান শহরটি এখন কার্যত বন্ধ বা অচল হয় আছে। এরমধ্যেই জীবনের ঝুঁকি নিয়েই বহু স্বেচ্ছাসেবী আক্রান্তদের হাসপাতালে আনা-নেয়া করছেন। আবার অনেকে স্বাস্থ্য কর্মীদের যাদের পরিবহনের ব্যবস্থা নেই তাদের সহায়তার চেষ্টা করছেন। দেশটিতে সাধারণ রোগীর পাশাপাশি গত মঙ্গলবার পর্যন্ত সাত চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। যেখানে উহানের এক হাসপাতালের পরিচালকও রয়েছেন। 

উল্লেখ্য, গত ৩১ ডিসেম্বর হুবেই প্রদেশের উহান শহরেই প্রথম এই ভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে। এখন পর্যন্ত এটি বিশ্বের অন্তত ৩০টির বেশি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। চীনের হুবেই প্রদেশের উহানের একটি সামুদ্রিক খাবারের বাজার থেকে এই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু। অনেক দেশই তাদের নাগরিকদের চীন ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ