কমলাপুরে ঘরমুখো মানুষের ঢল

ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৬,   ১৮ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

কমলাপুরে ঘরমুখো মানুষের ঢল

 প্রকাশিত: ১৮:১৫ ১৩ জুন ২০১৮  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ঈদে কমলাপুর রেলস্টেশনে ঘরমু্খো মানুষের উপচেপড়া ভিড়। তবে দেরিতে হলেও সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ছেড়ে গেছে ১২টি ট্রেন। তারপরও যাত্রীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে হতাশা।

বুধবার ট্রেনে ঈদযাত্রার চতুর্থ দিন। গেল দুই দিনের তুলনায় ভোর থেকেই স্টেশনে মানুষের ভিড় বেশি ছিল। সড়কপথে যানজটের ঝক্কি এড়াতে অনেকে বিকল্প হিসেবে রেলপথ ভ্রমণ বেছে নেন। গত তিন দিন বেশির ভাগ ট্রেন নির্ধারিত সময়ে প্ল্যাটফর্ম ছাড়লেও বুধবার দেখা দিয়েছে সিডিউল বিপর্যয়। বেশ কয়েকটি ট্রেন ছেড়েছে নির্ধারিত সময়ের চেয়ে কয়েক ঘণ্টা পরে।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বলছে, ভোর থেকে বেলা তিনটা পর্যন্ত ৩০টি ট্রেন কমলাপুর থেকে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে ছেড়ে গেছে। বুধবার কমলাপুর থেকে ঈদ স্পেশাল ট্রেনসহ সারা দিনে মোট ৫৯টি ট্রেন ছাড়ার কথা রয়েছে। রাজশাহী, দেওয়ানগঞ্জ, পার্বতীপুর, লালমনিরহাট ও খুলনার উদ্দেশে পাঁচটি বিশেষ ট্রেন ছেড়ে যায় স্টেশন।

বেলা আড়াইটার দিকে কমলাপুর রেলস্টেশন পরিদর্শনে আসেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। তিনি রাজশাহীগামী সিল্কসিটি এক্সপ্রেস ও চট্টগ্রামগামী সুবর্ণ এক্সপ্রেসের যাত্রীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। পরিদর্শন শেষে রেলমন্ত্রী বলেন, শুধু একটি ট্রেন যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে দেরিতে ছেড়েছে। সেটি হচ্ছে সুন্দরবন এক্সপ্রেস। মাত্র ৫৫ মিনিট দেরি করেছে। বাকি সব ট্রেনই যথা সময়ে কমলাপুর ছেড়ে গেছে। আমাদের লক্ষ্য যাত্রীদের সেবা দেয়া।

তিনি বলেন, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ যাত্রীদের সেবা দিয়ে ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে সতর্ক রয়েছে। ট্রেনের ছাদে কিন্তু কোনো যাত্রী নেই। কারণ, দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা যাত্রীদের বোঝাতে সক্ষম হয়েছেন যে ছাদে ওঠা আইনবহির্ভূত। এ বছর যাত্রীরা ছাদে কেউ ওঠেননি।

বিমানবন্দর স্টেশন থেকে ট্রেনের ছাদে যাত্রীরা উঠছে-সাংবাদিকদের এমন তথ্যের ব্যাপারে রেলমন্ত্রী জানান, ছাদে ওঠা আইনে নেই। আমরাও সমর্থন করি না। যারা ওঠেন, তারা নিজ দায়িত্ব উঠছেন। যারা উঠছেন, তাদের নিবৃত্ত করা হচ্ছে।

এদিকে কমলাপুর স্টেশনের ব্যবস্থাপক সিতাংশু চক্রবর্তী বলেন, ভোর থেকে স্টেশনে যাত্রীদের ভিড় বেশি হয়েছে। কয়েকটি ট্রেন সামান্য দেরি করেছে, এটা বড় কিছু নয়। বিভিন্ন কারণে কয়েকটি ট্রেন দেরি করে গেছে। বাকিগুলো সময়মতো গেছে, দু-একটি হয়তো ৫ থেকে ১০ মিনিট দেরি করেছে। তবে ঈদের সময় ১৫-২০ মিনিট দেরি করে যাওয়াও বড় কিছু নয়। এটা ঠিক হয় যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে/এলকে

Best Electronics