কমলাপুরে উপচে পড়া ভিড়

ঢাকা, সোমবার   ২৪ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ১১ ১৪২৬,   ২০ শাওয়াল ১৪৪০

ঈদের অগ্রিম টিকিট

কমলাপুরে উপচে পড়া ভিড়

আব্দুল্লাহ আল মামুন ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:২২ ২৪ মে ২০১৯   আপডেট: ১৫:২৬ ২৪ মে ২০১৯

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে টিকিট প্রত্যাশী মানুষের উপচে পড়া ভিড়। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে টিকিট প্রত্যাশী মানুষের উপচে পড়া ভিড়। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রেলের আগাম টিকিট বিক্রির তৃতীয় দিন কমলাপুর স্টেশনে টিকিট প্রত্যাশীদের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। ২ জুনের অগ্রিম টিকিট শুক্রবার সকাল থেকেই বিক্রি শুরু হয়।

এদিকে বহুল কাঙ্খিত এ টিকিট কিনতে কেউ মধ্যরাতে, কেউবা ভোর থেকে লাইনে দাঁড়িয়েছেন। প্রতিটি লাইন এঁকেবেঁকে চলে গেছে স্টেশনের বাহির পর্যন্ত।

সরেজেমিনে দেখা গেছে, বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট নিতে বৃহস্পতিবার রাত থেকে কমলাপুর স্টেশনে লাইনে দাঁড়ান ছাত্তার আলি নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা। তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে সেহেরি খেয়েই লাইনে দাঁড়িয়েছি। মাত্র টিকিট পেলাম। এসির টিকিট শেষ। তাই বাধ্য হয়েই নন এসির টিকিট নিলাম।

এ ছাড়া রংপুর এক্সপ্রেসের টিকিট কাটার জন্য সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন আব্দুল বাতেন। তিনি বলেন, আমার সিরিয়াল আসতে আসতে টিকিট পাবো কি না, আশঙ্কায় আছি। কেননা এরই মধ্যে শোনা যাচ্ছে, এসির টিকিট শেষ।

তিনি বলেন, ছুটির দিন হওয়ায় আজ মনে হয় সবচেয়ে বেশি মানুষ টিকিটের জন্য লাইনে দাঁড়িয়েছে। এখানে দায়িত্বশীলরা বলছেন, গত দুই দিনের তুলনায় আজ উপস্থিতি তুলনামূলক অনেক বেশি।

কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার আমিনুল হক বলেন, প্রতিটি লাইনে মানুষ সুশৃঙ্খলভাবে দাঁড়িয়ে টিকিট সংগ্রহ করছেন। এ ছাড়া ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রিতে যেন কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে লক্ষ্যে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীসহ রেলওয়ের নিজস্ব বাহিনী তৎপর রয়েছে।

যাত্রীর সুবিধার্থে এবার পাঁচটি স্থান থেকে রেলের অগ্রিম টিকিট দেয়া হচ্ছে। যমুনা সেতু দিয়ে সমগ্র পশ্চিমাঞ্চলগামী ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে কমলাপুরে। এ ছাড়া চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে বিমানবন্দর স্টেশনে।

ময়মনসিংহ ও জামালপুরগামী ট্রেনের টিকিট তেজগাঁও স্টেশন, নেত্রকোনাগামী মোহনগঞ্জ ও হাওড় এক্সপ্রেসের টিকিট বনানী স্টেশন থেকে দেয়া হচ্ছে। এ ছাড়া সিলেট ও কিশোরগঞ্জগামী সব আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট ফুলবাড়িয়া (পুরান রেলভবন) থেকে পাওয়া যাচ্ছে।

এবার একজন যাত্রী চারটি টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন। জাতীয় পরিচয়পত্র দেখিয়ে টিকিট সংগ্রহ করতে হবে।

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট ২২ মে থেকে বিক্রি শুরু হয়েছে। প্রথম দিন ৩১ মে ও পরের দিন ১ জুনের অগ্রিম টিকিট দেয়া হয়েছে।

আগামীকাল ২৫ মে ৩ জুনের এবং ২৬ মে ৪ জুনের টিকিট দেয়া হবে। এ ছাড়া ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ২৯ মে, যা চলবে ২ জুন পর্যন্ত।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর