Exim Bank Ltd.
ঢাকা, শুক্রবার ১৯ অক্টোবর, ২০১৮, ৪ কার্তিক ১৪২৫

কবরের আজাব থেকে মুক্তির উপায়

মাওলানা ওমর ফারুকডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম
কবরের আজাব থেকে মুক্তির উপায়
ফাইল ছবি

মৃত্যর পর কবরই হচ্ছে মানুষের একমাত্র আবাস। জান্নাতি রুহ কবরে শান্তির ঘুম ঘুমাবে আর জাহান্নামি রুহ নানা শাস্তি ভোগ করবে।

কেয়ামত পর্যন্ত সকল মৃত প্রাণই এ কবরে সওয়াল জওয়াবের মুখোমুখি হবে। যে সঠিক জবাব দিতে পারবে তার জন্য সুসংবাদ আর যে ‘লা জওয়াব’ অর্থাৎ নিরুত্তর হবে তার জন্য এ কবর হবে দুঃখের ঘর। নানা বিভিন্ন হাদীসের ব্যাখ্যায় কবর জগতে লাশের সঙ্গে ফেরেস্তাদের আচরণের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

এ আলোচনায় কবর জগতের শাস্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার নানা আমল ও কবর জগতের আচরণ কেমন হবে সে বিষয়গুলো আলোচনা করা হলো।

আদম সন্তানের গর্ব, মহান আল্লাহর প্রিয় পাত্র রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন, মৃত ব্যক্তিকে কবরে রাখার পর দাফন করে লোকেরা যখন ফিরে যায়, সে তাদের জুতার আওয়াজ শুনতে পায়। যদি সে মুমিন হয়, নামাজ তার মাথার নিকট এসে যায়। রোজা তার ডান দিকে, যাকাত তার বাম দিকে এসে যায়। সদকা, নফল নামাজ এবং মানুষের সঙ্গে কৃত সদাচার তার পায়ের দিকে এসে যায়।

যদি মাথার দিক থেকে শাস্তি আসে, নামাজ বলবে আমার দিক থেকে জায়গা নেই। ডানদিক থেকে শাস্তি আসলে রোজা বলবে আমার দিক দিয়ে জায়গা পাওয়া যাবে না। বামদিক থেকে শাস্তি আসলে জাকাত বলবে, আমার দিক দিয়ে জায়গা নেই। পায়ের দিক থেকে শাস্তি আসলে তার সদকা ও নেক কাজ বলবে, আমাদের দিক দিয়ে জায়গা নেই। (আততারগীব ও আততাহরীব ৪/৩৭১)।

সূরা মূলক ও আলিফ লাম মীম সিজদা পড়ার ফজিলত:

হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর এক সাহাবি একটি কবরে তাবু টানিয়েছেন। তার জানা ছিল না এটি কবর। তাবুতে বসে বসে হঠাৎ দেখলেন, এতে একজন মানুষ ‘তাবারকাল্লাযি বিয়াদিহিল মুলক’ পড়ছে। পড়তে পড়তে সে সূরা শেষ করেছে। এ ঘটনা তিনি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর খেদমতে আরজ করলেন। তখন তিনি বললেন, এ সূরা শাস্তি প্রতিরোধকারী এবং তাকে আল্লাহর শাস্তি থেকে রক্ষা করছে। (মেশকাত ১৮৭)

হজরত আবু হোরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, নিশ্চয় ৩০ আয়াত বিশিষ্ট একটি সূরা আছে। এ সূরার সুপারিশে এক ব্যক্তিকে ক্ষমা করে দেয়া হয়েছে। এরপর বলেন সেই সূরাটি হলো ‘তাবারকাল্লাযি বিয়াদিকাল মূলক’। (মেশকাত ১৮৭)।

হজরত খালেদ ইবন মা’দান (রহ.) তাবিয়ি সূরা মূলক ও আলিফ লাম মিম সিজদা এর ব্যাপারে বলতেন, এ দুটি সূরা তার পাঠকারীর জন্য আল্লাহর সঙ্গে বিতণ্ডা করবে এবং প্রত্যেকেই বলবে, হে আল্লাহ! আমি যদি তোমার কিতাবের অংশ না হই, তুমি আমাকে তোমার কিতাব থেকে মিটিয়ে দাও এবং তিনি এটাও বলতেন, এ সুরা দুটি পাখিদের মত তার পাঠকারীর ওপর পাখা বিছিয়ে দেবে এবং তাকে কবরের শাস্তি থেকে রক্ষা করবে। (মেশতাক ১৮৮)।

জুমার রাতে বা দিনে মৃত্যু হয় যার:

হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, যে মুসলমানই জুমার দিন বা রাতে ইন্তিকাল করে আল্লাহ তায়ালা কবরের ফেৎনা থেকে তাকে হেফাজত করেন। [মেশকাত-১৩৭]।

রমজানে যার মৃত্যু হয়:

হজরত আনাস ইবনে মালেক (রা.) বলেন, নিঃসন্দেহে রমজান মাসে যাদের মৃত্যু হয়, তাদের থেকে কবরের শাস্তি উঠিয়ে নেয়া হয়। (শরহুস সূদুর-৮১)। হজরত আনাস (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, জুমার দিনে যার মৃত্যু হয় কবরের শাস্তি থেকে সে রক্ষা পায়।

মুজাহিদ, সীমান্ত প্রহরী ও শহিদ:

হজরত মেকদাম ইবনে মা’দী কারাব (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন, আল্লাহ তায়ালার কাছে শহিদের জন্য ছয়টি পুরস্কার রয়েছে।

(১) রক্তের প্রথম ফোটা পতিত হতেই তাকে ক্ষমা করে দেয়া হয় এবং বেহেশতে তার ঠিকানা দেখানে হয়। (২) কবরের শাস্তি থেকে হেফাজতে রাখা হয়। (৩) সিঙ্গাঁ ফুৎকার কালের ভয়ানক অবস্থা থেকে হেফাজতে থাকবে। (৪) তার মাথায় সম্মানের মুকুট রাখা হবে। যার একেকটি ইয়াকুত দুনিয়ার সবকিছুর চেয়ে উত্তম হবে। (৫) ডাগর ডাগর চোখ বিশিষ্ট ৭২টি হুর তার জোড়া হিসাবে দেয়া হবে। (৬) ৭০ জন আত্মীয়ের ব্যাপারে তার সুপারিশ কবুল করা হবে। (মেশকাত।

হজরত সালমান ফারসি (রা.) বর্ণনা করেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, আল্লাহর রাস্তায় ইসলামি দেশের হেফাজতের জন্য সীমান্তে একদিন ও একরাত কাটানো, একমাস নফল রোজা রাখা এবং একমাস রাতে ইবাদত করার চেয়ে উত্তম। এ সীমান্ত প্রহরী যদি মারা যায়, তাহলে সে যে সকল আমল করতো এর সাওয়াব কিয়ামত পর্যন্ত চালু রাখা হবে। শহিদদের মতো তার রিজিক চালু থাকবে এবং কবরের শাস্তি থেকে নিরাপদ থাকবে। (মেশকাত-৩২৯)।

হজরত আবু আইয়ুব (রা.) বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, যে ব্যক্তি শত্রুদের মোকাবেলায় দৃঢ়পদ থাকে, অবশেষে নিহত হয় বা বিজয়ী হয় তাকে কবরে ফেতনায় ফেলা হবে না।

এক ব্যক্তিকে জমিন গ্রহণ করেনি:

হজরত আনাস (রা.) থেকে বর্ণিত এক ব্যক্তি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কাতেব ছিল। সে ইসলাম ত্যাগ করে মুশরিক হয়ে গেল। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার জন্য বদদোয়া করলেন যে, জমিন তাকে গ্রহণ করবে না। এরপর যখন সে মারা গেল, হজরত আবু তালহা (রা.) তার কবরের দিকে তাশরিফ নিলেন এবং তাকে কবরের বাইরে পড়ে থাকতে দেখলেন।

এটা দেখে তিনি সেখানকার লোকদের জিজ্ঞেস করলেন, ঘটনা কি? তারা বলল, আমরা তাকে কয়েকবার দাফন করেছি। তবে জমিন তাকে গ্রহণ করেনি। প্রতিবারই জমিন তাকে বাইরে নিক্ষেপ করেছে। তাই আমরা তাকে বাইরে ছেড়ে দিয়েছি। (মেশকাত ৫৩৫, বুখারি, মুসলিম)।

উল্লেখ আছে, কোনো প্রয়োজনে মদিনার একজন আলেমের কবর খনন করা হলো। এতে একজন মেয়ের লাশ পাওয়া যায়। দর্শকদের কেউ কেউ মেয়েটিকে চিনত। তারা জানত সে অমুক শহরের অমুক খৃষ্টানের মেয়ে। তাই তারা সেখানে পৌঁছে তার মাতা-পিতাকে তার অবস্থা জিজ্ঞেস করল এবং তার কবর কোথায় জানতে চাইল। তারা তার কবরের সন্ধান দেয়। সঙ্গে সঙ্গে এটাও বলল, সে মনে মনে মুসলমান ছিল এবং মদিনায় মৃত্যুর আকাঙ্খা করত। এরপর তার কবর খুঁড়ে দেখা গেল এতে ওই আলেমের লাশ। মদিনার যার কবরে ওই মেয়ের লাশ পাওয়া গিয়েছিল। এরপর ওই আলেমের স্ত্রীর কাছে তার আমল সম্পর্কে জিজ্ঞেস করল। সে বলল, তিনি বড় ভালো মানুষ ছিলেন। তবে সে এক কথা বলত খৃষ্টধর্মে ‘জানাবাতের গোসল জরুরি নয়।’ এ বিষয়টি বড় সহজ করেছে। এ কারণেই তাকে মেয়ের কবরে পৌঁছানো হয়েছে।

কবর জগতে সকাল-সন্ধা, বেহেশত অথবা দোযখকে পেশ করা হয়:

হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, তোমাদের কেউ যখন মারা যায় তখন সকাল-সন্ধা তার ঠিকানা বেহেশ অথবা দোযখ পেশ করা হয়। যদি সে বেহেশতি হয় সকাল-সন্ধা তার সামনে বেহেশতকে পেশ করা হয়। আর যদি সে দোযখি হয়, সকাল-সন্ধা তার সামনে দোযখকে পেশ করা হয় এবং তার ঠিকানা দেখিয়ে বলা হয় এটা (কবরের শান্তি বা শাস্তি) তোমার ঠিকানা। এমনকি আল্লাহ তায়ালা কিয়ামতের দিন ওই ঠিকানাতেই উঠানো হবে যা তোমাকে দেখানো হয়েছে। [মেশকাত ৩৫, বুখারি, মুসলিম]।

কবরের শাস্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার এক বিশেষ দোয়া:

হজরত বারা বিন আযিব রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত আছে, আমরা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সঙ্গে এক আনসারি সাহাবির জানাজায় অংশগ্রহণ করার জন্য বের হলাম। তখনও ওই সাহাবার কবর খননের কাজ শেষ হয়নি। রাসূলুল্লাহ (সা.) কিবলামুখী হয়ে বসে পড়লেন। আমরাও তাঁর চারপাশে বসে গেলাম। তাঁর হাতে ছিল একটি কাঠি। তা দিয়ে তিনি মাটিতে খুঁচাতে থাকলেন আবার আকাশের দিকে তাকাতে থাকলেন। একবার জমিনের দিকে আবার আকাশের দিকে তাকাচ্ছিলেন। এভাবে তিনি তিনবার দৃষ্টি উঁচু-নিচু করলেন। অতঃপর সাহাবায়ে কেরামকে উদ্দেশ্য করে বললেন, ‘তোমরা আল্লাহর কাছে কবরের আজাব থেকে আশ্রয়ের জন্য প্রার্থনা করো। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এ কথাটি দুই বার অথবা তিনবার বললেন।

অতঃপর তিনি পরকালের প্রথম মনজিল কবরের আজাব থেকে রক্ষা পেতে এ দোয়াটি করলেন, আল্লাহুম্মা ইন্নি আউ’জুবিকা মিন আ’জাবিল ক্ববরি। অর্থ : ‘হে আল্লাহ! আমি আপনার কাছে কবরের আজাব থেকে আশ্রয় চাই।’

সূত্র: মুসলিম শরীফ

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে

আরোও পড়ুন
সর্বাধিক পঠিত
আইয়ুব বাচ্চু মারা গেছেন
আইয়ুব বাচ্চু মারা গেছেন
‘স্বামীকে ছেড়ে’ জোভানের সংসার করতে চান মিম!
‘স্বামীকে ছেড়ে’ জোভানের সংসার করতে চান মিম!
বিবাহবার্ষিকীতে স্বামীকে স্ত্রীর সেরা উপহার!
বিবাহবার্ষিকীতে স্বামীকে স্ত্রীর সেরা উপহার!
দুই স্বামীকে ‘ছেড়ে’ মন্ট্রিলে দেখা মিলল তিন্নির!
দুই স্বামীকে ‘ছেড়ে’ মন্ট্রিলে দেখা মিলল তিন্নির!
যেভাবে প্রথম বুবলীর ‘ভাই’
যেভাবে প্রথম বুবলীর ‘ভাই’
‘তিন ভাই’ একসঙ্গে আমাকে ধর্ষণ করেছিল’
‘তিন ভাই’ একসঙ্গে আমাকে ধর্ষণ করেছিল’
‘ওয়েব সিরিজে ভরপুর নগ্নতা’ দেখার কেউ নেই!
‘ওয়েব সিরিজে ভরপুর নগ্নতা’ দেখার কেউ নেই!
প্রেমিকের কবরে কনের সাজে প্রেমিকার কান্না
প্রেমিকের কবরে কনের সাজে প্রেমিকার কান্না
স্ত্রী ফিরে দেখে বাসায় অন্য নারী!
স্ত্রী ফিরে দেখে বাসায় অন্য নারী!
মৃত্যুর আগে কোথায় ছিলেন আইয়ুব বাচ্চু?
মৃত্যুর আগে কোথায় ছিলেন আইয়ুব বাচ্চু?
১ কোটি টাকা চেয়েছিলেন অনন্ত
১ কোটি টাকা চেয়েছিলেন অনন্ত
দুলাভাইয়ের কাছে শ্যালিকার আবদার!
দুলাভাইয়ের কাছে শ্যালিকার আবদার!
দাম শুনলে চমকে যাবেন যে কেউই!
দাম শুনলে চমকে যাবেন যে কেউই!
এবার মেয়েকে নিয়ে মারাত্মক কথা বললেন ঐশ্বরিয়া!
এবার মেয়েকে নিয়ে মারাত্মক কথা বললেন ঐশ্বরিয়া!
মিলনেই মৃত্যু, কারা ছিলো সেই ‘বিষকন্যা’?
মিলনেই মৃত্যু, কারা ছিলো সেই ‘বিষকন্যা’?
এক উঠোনে মসজিদ-মন্দির, প্রার্থনায় নেই বিবাদ
এক উঠোনে মসজিদ-মন্দির, প্রার্থনায় নেই বিবাদ
মাহি-মান্নার গোপন ফোনালাপ ফাঁস
মাহি-মান্নার গোপন ফোনালাপ ফাঁস
গাড়িতেই মৃত্যু হয় আইয়ুব বাচ্চুর: চিকিৎসক
গাড়িতেই মৃত্যু হয় আইয়ুব বাচ্চুর: চিকিৎসক
‘শিস কন্যা’র তালে গাইলেন প্রসেনজিৎ
‘শিস কন্যা’র তালে গাইলেন প্রসেনজিৎ
বিয়ে ভারতেই, অতিথির তালিকায় মাত্র...
বিয়ে ভারতেই, অতিথির তালিকায় মাত্র...
শিরোনাম:
প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরবেন আজ প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরবেন আজ প্রতিমা বিসর্জনে আজ শেষ হচ্ছে দুর্গোৎসব প্রতিমা বিসর্জনে আজ শেষ হচ্ছে দুর্গোৎসব