ওমানে সড়কে ঝরলো চার বাংলাদেশির প্রাণ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ১৯ ১৪২৬,   ০৮ শা'বান ১৪৪১

Akash

ওমানে সড়কে ঝরলো চার বাংলাদেশির প্রাণ

প্রবাস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:২৩ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ২২:১০ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

ওমানে সড়ক দুর্ঘটনায় চার বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে তিন জনের বাড়ি মৌলভীবাজার জেলায়। এ খবর শোনার পর তাদের এলাকায় শোকের মাতম চলে।

ওমানের আদম এলাকায় সোমবার স্থানীয় সময় বিকেল চারটায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে তিন জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। 

এরা হলেন- মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের বিলেরপার গ্রামের লিয়াকত আলী (৩৫), শরীফপুর ইউনিয়নের সঞ্জরপুর গ্রামের সবুর আলী (৩৩) ও কমলগঞ্জ উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের চিতলীয়া বাজারের টিলালাইন এলাকার আলম আহমেদ (৩৫)।

ওমানের আদম এলাকায় কর্মরত বাংলাদেশি শ্রমিকদের সূত্রে জানা যায়, কাজ শেষে বাইসাইকেলযোগে বাসায় ফেরার পথে প্রাইভেট কারের চাপায় ঘটনাস্থলেই তিন জনের মৃত্যু হয়। অপরজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসাপাতালে নিলে মারা যান।

নিহত লিয়াকত আলীর শ্যালক জসিম উদ্দীন ওমান থেকে মুঠোফোনে জানান, এ দুর্ঘটনায় দুই জনের চেহারা বিকৃত হয়ে গেছে। এতে এক জনের পরিচয় শনাক্ত করা যায়নি।

কমলগঞ্জ উপজেলার আলীনগর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শামীম আহমদ জানান, আব্দুল বাছিতের ছেলে আলম আহমদ ৫ মাস আগে ওমান যায়। তার স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। তার মৃত্যুর সংবাদে গ্রামের বাড়িতে শোকের মাতম চলছে।

নিহত লিয়াকত আলীর চাচা বিজিবির (অব.) মাসুদুর রহমান জানান, হাজীপুর ইউনিয়নের বিলেরপার গ্রামের মুসলিম আলীর ছেলে লিয়াকত প্রায় ৪ বছর আগে ওমান যায়। সেখানে কনস্ট্রাকশনের কাজ করে পরিবার চালাতো। পাসপোর্ট নবায়ন করে দু’মাস পরে দেশে আসার কথা ছিল। তার স্ত্রী ও নয় বছর বয়সের এক সন্তান রয়েছে। তার মৃত্যুর সংবাদে গ্রাম জুড়ে চলছে শোকের মাতম।

নিহত সবুর আলীর মামাতো ভাই কামাল খান জানান, সঞ্জরপুর গ্রামের আব্দুস শহীদের ছেলে সবুর আলী। সে ১০ বছর ধরে ওমানে। দু’বছর আগে দেশে আসে। কিছুদিন থাকার পর আবার ওমান পাড়ি জমায়। মা আছেন। বাবা নেই। চার ভাই ও চার বোনের মধ্যে সে তৃতীয়। নিহত সবুরের দুই মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই