Alexa এ কান্নার শেষ কি হবে না?

ঢাকা, বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯,   কার্তিক ১ ১৪২৬,   ১৬ সফর ১৪৪১

Akash

এ কান্নার শেষ কি হবে না?

ইদ্রিস আলম ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:০৫ ১২ মার্চ ২০১৯   আপডেট: ২২:০৭ ১২ মার্চ ২০১৯

দুই মেয়ে কোলে নিখোঁজ শিল্পীর স্বামী। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

দুই মেয়ে কোলে নিখোঁজ শিল্পীর স্বামী। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

কাঁদতে কাঁদতে শুকিয়ে গেছে দু’নয়নের অশ্রু, আর কত কাঁদতে হবে জানা নেই মেয়ের শোকে কাতর পরিবারটির। এদিকে কালো মেঘের ছায়া নেমে এসেছে নাড়ী ছেরা ধন দোলার ঘড়ে ফেরার অপেক্ষায়। এ প্রহরের একেক দিন যেন বছরের থেকে বেশি মনে হচ্ছে মেয়ে হারা বাবা-মার।

এদিকে মেয়ে বেঁচে আছে কি না জানে না দোলার মা-বাবা। তাই জীবিত বা মৃত ফিরে পাওয়ায় যেন পরিবারটির শেষ আকুতি।

নিখোঁজ দোলা

এখনো কাঁদতে কাঁদতে খুঁজে বেড়ান তাদের বড্ড আদরের মেয়ে দোলাকে। এভাবেই আবেগঘন মুহূর্তে মায়াভরা কান্না জড়িত পরিবেশে কথা হয়  চুড়িহাট্টায় ঘটে যাওয়া রাতের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের সময় থেকে নিখোঁজ দোলার বাবা-মার সঙ্গে।

পুরান ঢাকার চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখনো নিখোঁজ রয়েছে ১১ জন। আর হাসপাতালের মর্গে শনাক্ত না হওয়া মরহেদ আছে ৮টি। এই আট জনের পরিচয় শনাক্ত করতে সপ্তাহ দুয়েক লাগতে পারে বলে জানিয়েছে সিআইডি। 

এদিকে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের তালিকা অনুযায়ী এ আটজনের পরিচয় শনাক্ত হওয়ার পরেও নিখোঁজের তালিকায় আরো তিনজন।  নিখোঁজদের সন্ধানে প্রতিদিন হাসপাতাল, মর্গ আর থানায় ঘুরছেন তাদের স্বজনরা।

চকবাজারে ২০ ফেব্রুয়ারি রাতের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের সময় থেকে নিখোঁজ দোলা। এদিকে তার সঙ্গে থাকা বান্ধবী বৃষ্টির দেহ শনাক্ত হয়েছে ডিএনএ পরীক্ষায়। কিন্তু দোলার মা-বাবা জানেন না তাদের আদরের মেয়ের ভাগ্যে কি ঘটেছে?

নিখোঁজ দোলার বাবা

দোলার বাবা বলেন, আজ জানতে পারলাম আমার মেয়ের লাশের খবর এখনো হাতে পায়নি। না পাওয়া পর্যন্ত শান্তনা দিতে পারছি না মনকে।

এদিকে, এখনো মাকে হারানোর শোক বুঝে ওঠার জ্ঞান দেননি মহান আল্লাহ। তবে মায়ের শূন্যতা প্রতি ক্ষণে ক্ষণে ভেসে উঠে নিষ্পাপ মাসুম চেহারায়। কেউ বাসার দরজা নক করলেই যেন তার কাছে মনে হয় আম্মু ফিরেছে আইসক্রিম নিয়ে। কে বুঝাতে পারবে তার আম্মু আর কোনো দিন ফিরবে না আইসক্রিম নিয়ে! কে বা শান্তনা দেবে তাকে। আদৌ কি শান্তনা দেয়ার ভাষা কারো জানা আছে।

এখনো মাঝ রাতে ঘুমের ঘোরে খুঁজে বেড়াই মাকে। আম্মু...আম্মু ডাকটাই যেন তার শেষ সম্বল। কিন্তু প্রতি উত্তর দেয়ার কেউ রইল না মামনি মরিয়মের। কি শান্তনাই বা দেব আমি তাকে? অতি কষ্টে বললেন মরিয়মের বাবা সুমন। তিনি নিজেও শোকে মাতম স্ত্রীকে হারিয়ে দিশেহারা দু’সন্তানকে নিয়ে।

মেয়ে কোলে নিখোঁজ শিল্পীর স্বামী

চার বছরের ছোট্ট মেয়ে মরিয়ম আশায় বুক বেঁধে আছে মা আইসক্রিম নিয়ে ফিরবে। ওই দিন রাতে দুই মেয়েকে বাসায় রেখে আইসক্রিম কিনতে নিচে নেমেছিল মা শিল্পী। আর ফিরে আসেনি। যদি একটি বারের জন্য জানতো আর কোনো দিন দেখা হবে না কলিজার টুকরা মেয়েদের সঙ্গে। তাহলে কি যেত নিচে আইসক্রিম নিতে!

নিখোঁজ শিল্পির বড় মেয়ে মরিয়ম ডেইলি বাংলাদেশকে বলে, আগুন লাগবে আম্মু তো জানতো না, জানলে কি যেত আম্মু আদো আদো কণ্ঠে জানায় বাবুটি।

ছোট্ট দুই মেয়েকে নিয়ে দিশেহারা শিল্পির স্বামী সুমন। হাসপাতাল, মর্গ, থানা সবজায়গায় খুঁজে চলেছেন স্ত্রীকে। 

নিখোঁজ শিল্পির স্বামী সুমন ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, আমি খুবই মর্মাহত। আসলে কাওকে বুঝাতে পারব না কতটা কষ্টে আছি সন্তানদের নিয়ে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ও বিভিন্ন পরিবারের দাবি অনুযায়ী এখনো নিখোঁজ রয়েছে ১১ জন। হাসপাতালের মর্গে শনাক্ত না হওয়া মরদেহ রয়েছে ৮টি। তাদের পরিচয় জানতে ২৫ জন ডিএনএ নমুনা দিয়েছে। 

সিআইডির অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ মো. রেজাউল হায়দার বলেন, আমরা কাজ করছি। সবারই লাশের ডিএনএ টেস্টে খোঁজ পাওয়া যাবে বলে মনে করি। কিছুটা সময় লাগছে।

নিমতলী বা চকবাজারের মতো ট্রাজেডি যেন না ঘটে সেজন্য সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষের। 

তাদের দেয়া নয় দফা সুপারিশ বাস্তবায়ন করারও দাবি জানান ফায়ার সার্ভিসের প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী হাসান।

ডেইলি বাংলাদেশ/ইএ/এসআই