এসিসি’র কাছে বিসিবি’র আপত্তিপত্র

.ঢাকা, শুক্রবার   ২৬ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১২ ১৪২৬,   ২০ শা'বান ১৪৪০

এসিসি’র কাছে বিসিবি’র আপত্তিপত্র

 প্রকাশিত: ২০:১৮ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ২০:১৮ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

আয়োজকদের একচোঁখা নীতির কারণে এশিয়া কাপ শুরু হওয়ার আগেই উত্তেজনার পারদ বাড়িয়ে দিয়েছে ভারত। টুর্নামেন্ট মাঠে গড়াতে দু'দিন সময় আছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে এশিয়া কাপের ১৪তম শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। এরই মধ্যে প্রস্তুত সব দল নিজেদের যোগ্যতার প্রমাণ দিতে।

মূলত আয়োজক দেশ ভারত নিজেদের জন্য আলাদা থাকার ব্যবস্থা করার পর থেকেই ক্রিকেট বিশ্বে উত্তেজনা শুরু হয়। এ উত্তেজনা সবার আগে অংশগ্রহণকারী অন্য দলগুলোর মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। বিশেষ করে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মধ্যে।

এদিকে ভারতের এহেন কার্যক্রমে টুর্নামেন্টের সুষ্ঠ নীতির অভাবের উল্লেখ এনে বিসিবি আপত্তিপত্র পাঠিয়েছে এসিসি বরাবর। এ তথ্য বিসিবি’র এক পরিচালকের কাছ থেকে জানা গেছে। তবে পাকিস্তানও একই ধরনের আপত্তিপত্র পাঠিয়েছে কিনা তা জানা যায়নি বিসিবি সূত্র থেকে।

জানা গেছে, দুবাইতে ভারতের জন্য আলাদা হোটেলের ব্যবস্থা করার পর থেকেই টুর্নামেন্টের নিরপেক্ষতা নিয়ে অন্যান্য দলগুলোর মধ্যে আলোচনা শুরু হয়ে গেছে। আলাদা হোটেলে শুধু ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্যরা অবস্থান করবে। টুর্নামেন্টের বাকি পাঁচ দল থাকবে ভিন্ন হোটেলে!

এ প্রসঙ্গে বিসিবি সিইওকে প্রশ্ন করা হলে তিনি সরাসরি কোন জবাব দিলেন না। তবে বললেন, এটা কেনো হলো, সে বিষয়টা আমরা জানতে চেষ্টা করছি। এর পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে কিনা সেটাও জানার প্রয়োজন রয়েছে।

মঙ্গলবার শেষ হয়েছে ইংল্যান্ড-ভারতের মধ্যকার পাঁচ ম্যাচ সিরিজের পঞ্চম ও শেষ টেস্ট। ভারত দীর্ঘ প্রায় আড়াই মাসের ইংল্যান্ড সফর শেষ করে এশিয়া কাপে অংশ নিতে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পা রাখবে ভারতীয় ক্রিকেট দল।

টুর্নামেন্টের বাকি পাঁচ দল পাকিস্তান, শ্রীলংকা, বাংলাদেশ, আফগানিস্তান ও হংকং। এই পাঁচ দল থাকবে দুবাইয়ের ইন্টার কন্টিনেন্টাল হোটেলে। একই হোটেলে থাকবেন অফিসিয়াল ও স্পনসররা।

ভারতীয় ক্রিকেটারদের থাকার জন্য প্রথমে এই হোটেলেই বুকিং দেয়া হয়েছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে এসে ভারতের এই বুকিং বাতিল করা হয়। নতুন করে বুকিং দেয়া হয়েছে দুবাইয়ের গ্র্যান্ড হায়াত হোটেলে। এ খবর প্রচারিত হবার পর থেকে বিশ্ব ক্রিকেটাঙ্গনে বেশ আলোড়ন তৈরি হয়।

জানা গেছে, আয়োজক হওয়ায় বাড়তি সুবিধা নিচ্ছে ভারত। এমন আলোচনা অন্য দলগুলোর মধ্যে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। এশিয়া কাপের ১৪তম আসরটির মূল আয়োজক ভারত। কিন্তু পাকিস্তানের আপত্তির কারণে ভারত থেকে সরিয়ে এশিয়া কাপ আয়োজন করা হয়েছে নিরপেক্ষ ভেন্যু দুবাইতে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর/টিআরএইচ