এসময় ঘর-বাড়ি জীবাণুমুক্ত রাখার কার্যকরী উপায় 

ঢাকা, রোববার   ০৫ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২৩ ১৪২৬,   ১২ শা'বান ১৪৪১

Akash

এসময় ঘর-বাড়ি জীবাণুমুক্ত রাখার কার্যকরী উপায় 

কানিছ সুলতানা কেয়া ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:১০ ২৫ মার্চ ২০২০   আপডেট: ১৮:১৬ ২৫ মার্চ ২০২০

ছবি: ঘর পরিষ্কার

ছবি: ঘর পরিষ্কার

প্রত্যেকের ঘরই যেন তার কাছে স্বর্গ। তবে সেই পছন্দের স্থানটি নিয়মিত পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখাটা সবচেয়ে বেশি জরুরি। না হলে ছড়িয়ে পড়তে পারে হাজারো রোগব্যাধি। 

ঘরের এমন কিছু জিনিস বা জায়গা আছে যেগুলো বেশি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। যেমন, টেবিল, ডাইনিং চেয়ার, ইলেকট্রিক সুইচ, টয়লেট, ডোর নবস, হ্যান্ডেল এবং রিমোট। এগুলো পরিবারের সবাই কমবেশি সারাদিনই ব্যবহার করেন। এতে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তাই যে জিনিসগুলো ঘরের সবাই বার বার স্পর্শ করে থাকে। সেগুলোর প্রতি বেশি মনোযোগ দিন। দিনে অন্তত দুইবার অ্যালকোহলযুক্ত জীবাণুনাশক দিয়ে এগুলো পরিষ্কার করুন।

একে অন্যের কিছু ব্যবহার করবেন না 

করোনাভাইরাস মানুষের ফুসফুসে সংক্রমণ ঘটিয়ে থাকে এবং শ্বাস প্রশ্বাসের মাধ্যমেও একজনের থেকে আরেকজনের দেহে ছড়িয়ে পরে। সাধারণ ফ্লু বা ঠাণ্ডা লাগার মতোই এই ভাইরাস ছড়ায় হাঁচি বা কাশির মাধ্যমে। তাই পরিবারের সবার ব্যবহারের জিনিস আলাদা করে ফেলুন। প্রতিদিন গরম পানি সাবান দিয়ে তা ধুয়ে ফেলুন। করোনা থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে অন্যের প্লেট, চশমা, কাপ, তোয়ালে, ব্যক্তিগত জিনিস এমনকি অন্যের বিছানা ব্যবহার কমিয়ে দিতে হবে। একে অপরের সংস্পর্শে থাকাও কমিয়ে ফেলুন। 

ঘরের মেঝে পরিষ্কার রাখুন

সবসময় গরম পানির সঙ্গে তরল সাবান বা জীবাণুনাশক দিয়ে মেঝে মুছে নিন। কারণ ঘরে থাকা অবস্থায় সবাই মেঝে দিয়েই হাঁটবে। করোনাভাইরাস যাতে মেঝেতে আটকে থাকতে না পারে। আর অন্যদের সংক্রমিত না করতে পারে তাই ঘরের মেঝে পরিষ্কার রাখুন। মেঝে থেকে এই ভাইরাস ছড়ানোর সম্ভাবনা কম হলেও সাবধান থাকাটাই সবচেয়ে নিরাপদ। সেভলন অ্যান্টিসেপটিক পানির সাথে মিশিয়ে ঘরের মেঝে মুছে নিন।   

ইলেকট্রনিক্সের জিনিসগুলো পরিষ্কার রাখুন 

ইলেকট্রনিক্সের জিনিসগুলো অবশ্যই পরিষ্কার রাখুন। ইলেকট্রনিক্সের বেশ কিছু অনুষঙ্গ আছে যেগুলো নিয়ে আমরা প্রতিনিয়ত ঘরে এবং বাইরে যাই। ঘর পরিষ্কারের পাশাপাশি ঘরের ইলেক্ট্রনিক্সগুলো পরিষ্কার করতে এসময় একদমই ভুলবেন না। আপনার ফোন, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট নিয়মিত জীবাণুনাশক দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। যাতে এগুলোর মাধ্যমে এই ভাইরাসটি আপনার ঘরে এবং দেহে প্রবেশ করতে না।  

ধোয়া মোছার জিনিসগুলো পরিষ্কার করুন

একবার ব্যবহারের পর আপনার ধোয়া মোছার জিনিসগুলো ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিন। যাতে পুনরায় ব্যবহার করার সময় ভাইরাসটি আবার ছড়িয়ে যেতে না পারে। তাই ব্যবহারের কাপর, স্পঞ্জগুলো গরম পানি সাবান দিয়ে ভালোমতো পরিষ্কার করে নিন। এরপর এগুলো রোদে শুকিয়ে নিন।   

পোষ্য প্রাণীটির যত্ন নিন

আপনার আদুরে এই নিরিহ প্রাণীগুলোও এই ভাইরাসের বাহক হতে পারে। জানা গেছে, এরই মধ্যে কিছু পোষ্য প্রাণীর দেহেও করোনা ভাইরাসের সন্ধান মিলেছে। তাই তাদের প্রতি রাখতে হবে বিশেষ খেয়াল। আপনার পোষা সব প্রাণীকেই কুসুম গরম পানি সাবান এবং জীবাণুনাশক দিয়ে ভালো মতো গোসল করান।  

বাড়িতে অতিথি আগমন কমিয়ে ফেলুন

ঘরে বাইরের মানুষদের আনাগোনা যতটুকু সম্ভব কমিয়ে আনুন। এই ভাইরাসটির প্রকাশের সময়কাল হচ্ছে ২ থেকে ১৪ দিন। সুতরাং এই সময়কালে ঘরের ভেতর বাইরের মানুষ না আনাই শ্রেয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস