Alexa এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করাই কিশোর গ্যাংয়ের কাজ

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২০ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৫ ১৪২৬,   ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করাই কিশোর গ্যাংয়ের কাজ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২৩:২০ ২১ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ০২:০৮ ২২ জুলাই ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

এলাকায় আধিপত্য বিস্তারে বিভিন্ন অপরাধমূলক কার্যক্রম চালানোই ফাস্ট হিটার বস (FHB) নামক কিশোর গ্যাং গ্রুপের প্রধান কাজ। গতকাল শনিবার রাজধানীর উত্তরা থেকে এই কিশোর গ্যাং গ্রুপের ১৪ সদস্যকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গ্রুপটি এলাকায় ‘তুফান গ্রুপ’ নামেও পরিচিত।

রোববার র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক লেফট্যান্টে কর্ণেল মো. সারওয়ার-বিন-কাশেম ডেইল বাংলাদেশকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, ওইদিন রাত সাড়ে ১১টার সময় রাজধানীর উত্তরা পূর্ব থানাধীন রাজউক অফিসের সামনে থেকে গ্যাং গ্রুপের সক্রিয় সদস্যদের আটক করা হয়।

আটকরা হলেন, বিশু চন্দ্র শীল (২০),  মো. নাঈম মিয়া (১৮), মো. ইয়াসিন আরাফাত (১৮), আসিফ মাহমুদ (২০), মো. ফরহাদ হোসেন (২১), মো. আল আমিন হোসেন (১৯), মো. বিজয় (১৯), শাওন হোসেন সিফাত (২১), মো. ইমামুল হাসান মুন্না (১৯), মো. তানভীর হাওলাদার (১৮), মো. আকাশ মিয়া (১৮), মো. মেরাজুল ইসলাম জনি (২০), হযরত আলী (১৮), মো. রাজিব (১৮)। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১টি এসবিবিএল অস্ত্র ও ২টি ধারালো ছোড়া উদ্ধার করা হয়।

র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক বলেন, রাজধানীর উত্তরা, আব্দুল্লাহপুর, টঙ্গী, উত্তরখান, দক্ষিণখান ও পাশ্ববর্তী এলাকায় কিছুদিন ধরে কয়েকটি কিশোর গ্যাং গ্রুপের দৌরাত্ব্য ও তাদের বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড নজরে আসে।

তিনি জানান, গ্যাং গ্রুপের সদস্যরা স্কুল কলেজে র‌্যাগিং, ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করা, মাদক সেবন, ছিনতাই, উচ্চ শব্দ করে মোটরসাইকেল চালিয়ে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি, অশ্লীল ভিডিও শেয়ার করাসহ এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করাই এদের প্রধান কাজ। এরা এলাকার নিরীহ ও মেধাবী যুবক-কিশোরদের চাপে রেখে জোর পূর্বক দলে আসতে বাধ্য করে। গ্যাং ভিত্তিক এদের নিজস্ব লোগো রয়েছে, যা দেয়াল লিখন ও ফেসবুকে ব্যবহার করে। 

কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা পশ্চিমা বিভিন্ন গ্যাং কালচারে প্রভাবিত এবং বিদেশি সিনেমার চরিত্রগুলোকে অনুসরণ করে থাকে। জানা যায়, গ্রুপটি উত্তরা এলাকায় দীর্ঘদিন যাবৎ অধিপত্য বিস্তার করে আসছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা জানায়, তারা ‘FHB’ গ্যাং গ্রুপের সক্রিয় সদস্য। গ্রুপে সদস্য বাড়ানোর কৌশল হিসেবে একটি PSB নামক ড্যান্স একাডেমি পরিচালনা করে। যেখানে আসামি বিশু অন্যান্যদের ডান্স শেখায়। তাদের গ্রুপে ছাত্র, দিনমজুর, বাস ড্রাইভার, অটো ড্রাইভার-হেলপার থেকে শুরু করে সব পেশার কিশোরই রয়েছে।

আটক আসামিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

ডেইলি বাংলাদেশ/ইএ/আরএম/আরএ

Best Electronics
Best Electronics