Alexa এরশাদের হার্টে রিং পরানো হবে, সঙ্গে নেই পরিবারের কেউই

ঢাকা, বুধবার   ১৭ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৩ ১৪২৬,   ১৪ জ্বিলকদ ১৪৪০

এরশাদের হার্টে রিং পরানো হবে, সঙ্গে নেই পরিবারের কেউই

 প্রকাশিত: ০৮:৩৯ ২০ অক্টোবর ২০১৭   আপডেট: ১৬:৪৬ ২০ অক্টোবর ২০১৭

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের হার্টে রিং পরানো হবে। বর্তমানে তিনি সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

হার্টে রিং পরানোর জন্যে চিকিৎসকেরা সমস্ত প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন।

এরশাদের সঙ্গে আছেন জাতীয় পার্টির শীর্ষস্থানীয় কেকজন নেতা। কিন্তু পাশে নেই পরিবারের কেউই। কঠিন মুহূর্তে এরশাদ পাশে পাচ্ছেন না তাঁর স্ত্রী রওশন এরশাদকে। নেই ছেলে এরিক এরশাদ এবং ভাই জি এম কাদেরও।

সোমবার (১৬ অক্টোবর) চিকিৎসার উদ্দেশ্যে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হন সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদ।

তিনি সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি হাসপাতালে ভর্তি হন। এই মুহূর্তে তাঁর পাশে আছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার, পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জিয়াউদ্দিন বাবলু, নাসরিন জাহান এমপি, এরশাদের ব্যক্তিগত সহকারি মেজর (অব.) খালেদ আক্তার। সিঙ্গাপুর হাইকমিশনও এরশাদের চিকিৎসায় সার্বক্ষণিক সহযোগিতা করছে।

এরশাদের সঙ্গে থাকা এক নেতা বলেন, `জাতীয় পার্টির অন্যান্য নেতৃবৃন্দও সিঙ্গাপুরে নেতার পাশে থাকতে চেয়েছিলেন। সবাই তাঁর (এরশাদের) জন্য দোয়া করছেন। কিন্তু এই কঠিন সময়ে স্ত্রী পাশে না থাকাটা তাঁর জন্যে নিশ্চয়ই কষ্টের। `

আরও কয়েকজন নেতা জানান, রাজনৈতিক বিভেদ থাকতেই পারে। কিন্তু স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক সব বিতর্ক ছাপিয়ে যায়। অন্তত এই কঠিন সময়ে এরশাদ তাঁর স্ত্রীকে এবং পরিবারের ঘনিষ্ঠজনদের পাশে পেতে চাইবেনই।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের সঙ্গে স্ত্রী রওশন এরশাদের দ্বন্দ্বটা দীর্ঘদিনের। রাজনৈতিক পট-পরিবর্তন এবং নানা প্রেক্ষাপটের কারণে তাঁর দুজনে আলাদাই থাকেন। খুব সহজে দুজনকে একসঙ্গে দেখাও যায় না। পরিস্থিতি এমন হয়ে যায় যে, কখনও কখনও জাতীয় নির্বাচনের সময়ে প্রার্থী মনোনয়ন এবং দলের কাউন্সিলকে ঘিরে সৃষ্ট দ্বন্দ্ব দুজনের ব্যক্তিগত সম্পর্ককেই আড়াল করে দেয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস