Alexa এরশাদের দাফন নিয়ে মুখ খুললেন বিদিশা

ঢাকা, শনিবার   ২৪ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ১০ ১৪২৬,   ২৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

এরশাদের দাফন নিয়ে মুখ খুললেন বিদিশা

নিউজ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:৪৮ ১৫ জুলাই ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মরদেহ রংপুরে দাফনের সব প্রস্তুতি নিয়েছেন সেখানকার নেতাকর্মীরা। তারা যে কোনো মূল্যে এরশাদকে রংপুরের মাটিতেই রাখতে চান।

এরশাদের জানাজা সম্পন্ন করতে কালেক্টর ঈদগাহ ময়দানে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। আর তার দাফন কার্য সম্পন্ন করতে পল্লী নিবাস বাসভবনের পার্শ্বে তার নিজ হাতে গড়া লিচু বাগানে কবরও খোঁড়া হয়েছে।  তার মরদেহ ঢাকায় ফিরিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হলে শক্ত হাতে প্রতিহত করার হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন তারা। 

এরশাদের দাফন নিয়ে মুখ খুলেছেন তার সাবেক স্ত্রী বিদিশা। তিনিও চান এরশাদের কবর যেন রংপুরের মাটিতেই হয়। বর্তমানে দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে তিনি নিজের এ ইচ্ছার কথা প্রকাশ করেছেন। 

বিদিশিার স্ট্যাটাস হুবহু তুলে ধরা হলো:

তাই যেনো হয়,

আমিও তাই চাই লক্ষ লক্ষ নেতা কর্মীদের মতো রংপুরের মাটি যেনো হয় এরশাদের শেষ ঠিকানা। সহধর্মীনী থাকতে বহুবার পল্লী নিবাসে বারান্দায় ছেলে এরিককে কোলে বসিয়ে উনি আমাকে বলেছিলেন, তুমি আমার ছোট, দেখ আমার মৃত্যুও যেন আমার ছেলের কাছে থেকে দূরে না রাখে। আমার কবর আমি এই পল্লী নিবাসে চাই। রংপুরের মানুষের ভালোবাসা প্রতিদান আমি দিতে পারিনি আজও। রংপুরের মানুষ আমার কবরে এসে দোয়া করবে এটাই আমার চাওয়া। প্রতিবার এই কথাটি বলতেন তিনি এরিকের দিকে তাকিয়ে, ভিজে চোখে।

আজ সদ্য বাবা হারা ছেলে আমার মায়ের আশ্রয়েও নেই। এরিকের চোখের পানিতে পাথরও গলে যায় কিন্তু গলে না রাজনীতিবিদদের মন।

আমার ছেলে এরিককে আটকিয়ে রাজনীতির কোন ফায়দা লুটবেন এনারা?”

দেড় দশক আগে বিদিশার সঙ্গে এরশাদের বিয়ে হয়। তাদের একমাত্র ছেলে শাহতা জারাব (এরিক এরশাদ)। বিয়ের কয়েক বছরের মধ্যে এরশাদ ও বিদিশার বিচ্ছেদ ঘটে।

রোববার সকাল পৌনে ৮টায় ঢাকার সিএমএইচ হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। গত ১০ দিন ধরে এই হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন তিনি। 

গত ৪ জুলাই থেকে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন এরশাদ। তিনি রক্তের রোগ মাইলোডিসপ্লাস্টিক সিনড্রোমে ভুগছিলেন। তার আগে গত ২২ জুন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে সিএমএইচে নেয়া হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ

Best Electronics
Best Electronics