Alexa এনআরসির তালিকা থেকে বাদ ১২ লাখ হিন্দু, অস্বস্তিতে বিজেপি!

ঢাকা, বুধবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৩ ১৪২৬,   ১৮ মুহররম ১৪৪১

Akash

এনআরসির তালিকা থেকে বাদ ১২ লাখ হিন্দু, অস্বস্তিতে বিজেপি!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৪৩ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ভারতের আসাম রাজ্যে চূড়ান্ত নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) প্রকাশ করা হয়েছে। এনআরসির লক্ষ্য আসাম থেকে মুসলিমদের তাড়ানো। কিন্তু চূড়ান্ত তালিকায় যে ১৯ লাখ বাদ পড়েছে তার মধ্যে ১০ থেকে ১২ লাখই হিন্দু বলে দাবি করা হয়েছে।

আর এ ঘটনায় ক্ষমতাসীন হিন্দুত্ববাদী বিজেপি বেশ অস্বস্তিতে রয়েছে। তবে চূড়ান্ত তালিকায় দেড় থেকে দুই লাখ মুসলিম বাদ পড়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, বাদ পড়াদের অর্ধেকের বেশি হিন্দু, গোর্খা এবং স্থানীয় আদিবাসী সমাজের লোক। এদের নাম এনআরসি থেকে বাদ পড়ার ফলে আগামী দিনে দলের হিন্দু ভোট-ব্যাংক ধাক্কা খাবে বলে আশঙ্কা করছেন আসামের বিজেপি নেতারা।

পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, ‘সরকার নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করে হিন্দুদের নাগরিকত্ব দিয়ে দেবে।

আসামের কংগ্রেস নেত্রী সুস্মিতা দেবের অভিযোগ, বিজেপি মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে। এনআরসিতে বাদ পড়া বাঙালিদের একটি বড় অংশ হলফনামা দিয়ে জানিয়ে রেখেছেন যে, তারা ১৯৭১ সালের আগে এদেশে এসেছেন। ফলে তাদের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত রয়েই গেল। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝেই মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে সাম্প্রদায়িক মেরুকরণের রাজনীতি করছে বিজেপি।

দেড় হাজার কোটি টাকার বেশি খরচ করে এমন ত্রুটিপূর্ণ একটি তালিকা তৈরির পেছনে কারা রয়েছে, তা খুঁজে বের করার দাবি করেছে সারা আসাম বাঙালি যুব ছাত্র ফেডারেশন।

সংগঠনটির সভাপতি উৎপল সরকার দাবি করেন, অতীতে অস্ত্র দেখিয়ে আসাম থেকে বাঙালিদের তাড়ানো হয়েছিল। এবার কাগজে-কলমে নাম না তুলে ফের বাঙালিদের ভিটে থেকে উৎখাত করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে