Exim Bank Ltd.
ঢাকা, বুধবার ১৪ নভেম্বর, ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫

একটি ঘৃণ্য অপরাধের মহামারী রূপ

আফরোজা পারভীন
অাফরোজা পারভীন, কথাশিল্পী, কলাম লেখক, সম্পাদক। জন্ম ৪ ফোব্রুয়ারি ১৯৫৭, নড়াইল। সাহিত্যের সকল ক্ষেত্রে অবাধ পদচারণা। ছোটগল্প, উপন্যাস, শিশুতোষ, রম্য, স্মৃতিকথা, অনুবাদ, গবেষণা ক্ষেত্রে ১০১টি পুস্তক প্রণেতা। বিটিতে প্রচারিত টিয়া সমাচার, ধূসর জীবনের ছবি, গয়নাসহ অনেকগুলি নাটকের নাট্যকার। 'অবিনাশী সাঈফ মীজান' প্রামাণ্যচিত্র ও হলিউডে নির্মিত স্বল্পদৈর্ঘ্য 'ডিসিসড' চলচ্চিত্রের কাহিনিকার। রক্তবীজ ওয়েব পোর্টাল www.roktobij.com এর সম্পাদক ও প্রকাশক। অবসরপ্রাপ্ত যুগ্মসচিব

স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় ‘ধর্ষণ’ শব্দটির সঙ্গে আমাদের ব্যাপকভাবে পরিচিতি ঘটে। যুদ্ধে লাখ লাখ মা বোন পাকিস্তানিদের দ্বারা ধর্ষিত হয়। অনেককে ধর্ষণের পরে হত্যা করা হয়, অনেকে অন্তঃসত্তা হয়ে পড়ে। অনেকে অন্তঃসত্তা অবস্থায় ধর্ষিত হন। তখন তার গর্ভের সন্তানটিকে নিয়ে পড়তে হয় পরিচয় সংকটে। অনেক ক্ষেত্রে জানার পরও পরিবারগুলো সন্তানের দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করে। কারণ পাকিস্তানিরা তাকে ছুঁয়েছে। ধর্র্ষিতা হয়ে আত্মহত্যার ঘটনাও কম নয়।

কিন্তু যুদ্ধ দিয়েই ধর্ষণ শেষ হলো না। ছড়িয়ে পড়লো মহামারির আকারে। এখন আর বয়স, স্থান, কাল কিছুই মানছে না। ৭০ বছরের বৃদ্ধা থেকে শুরু করে ৩ বছরের শিশু পর্যন্ত পুরুষের যৌন বিকৃতির শিকার হচ্ছে। শহর, নগর, বন্দর, গ্রাম সর্বত্র চলছে ধর্ষণযজ্ঞ দিনে রাতে। যতটা ঘটছে তার অল্পই আমরা জানতে পারছি। লোকলজ্জা, পরনিন্দা, আইন আদালত করার ভয়ে অনেকেই ধর্ষিতা হয়েও চুপ করে থাকছেন। কারণ আমাদের সমাজ ধর্ষিতাকে ভাল চোখে দেখে না। একজন মেয়ে ধর্ষিতা হলে সে অপরাধ না করেই সমাজের চোখে অপরাধী হয়ে যায়। সমাজে, সংসারে, পরিবারে তার অবস্থান হয় উপেক্ষার, নিন্দার। তাকে বিয়ে দিতে অসুবিধা, লোকসমাজে নিতে অসুবিধা এমন অনেক কারণে ধর্ষণের কথা চেপে যায় পরিবারগুলোও। ধর্ষণ আগেও ছিল। কিন্তু তখন শোনা যেত কদাচিৎ। এখন এটি প্রতি মুহূর্তের ঘটনা। কিছু ধর্ষণের বিচার হয়, অনেকগুলোরই হয়না।

ধর্ষণ বলতে আমরা বুঝি, কারো বিনা অনুমতিতে তার সাথে যৌন সঙ্গম করা বা যৌন অনুপ্রবেশ ঘটানো। শারীরিক বলপ্রয়োগ, অন্যভাবে চাপ প্রদান বা কর্তৃত্বের জোরে এমন ঘটনা ঘটানো হয়। অনুমতি দিতে অক্ষম যেমন বিকলাঙ্গ, অজ্ঞান, মানসিক প্রতিবন্ধি এ ধরনের মানুষের সাথে যৌন মিলনও ধর্ষণের আওতাভুক্ত। ধর্ষণকে যৌন নীপিড়ন, যৌন নির্যাতন, যৌন আক্রমণ, বলাৎকার, ইজ্জত হারানো, সম্ভ্রম হারানো, সতীত্ব হারানো এমন অনেক নামেও অভিহিত করা হয়।

ধর্ষণ যুদ্ধের একটি অন্যতম অনুষঙ্গ। আন্তর্জাতিক সংঘাত ও যুদ্ধ বিগ্রহের সময় ধর্ষণের ঘটনা কম বেশি সব দেশেই ঘটে। এটা য্দ্ধুকালীন যৌন সহিংসতা বা মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ বা যুদ্ধাপরাধ হিসেবে অভিহিত।

অপরিচিত মানুষের চেয়ে পরিচিত মানুষের দ্বারাই ধর্ষণের ঘটনা বেশি ঘটে। কারাগারে পুরুষ কর্তৃক পুরুষ ও নারী কর্তৃক নারী ধর্ষণের মতো ঘটনাও ঘটে।

ধর্ষণের শিকার ব্যক্তিরা মানসিকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত এবং আঘাত পরবর্তী চাপ বৈকল্যে আক্রান্তও হতে পারে। ধর্ষণের ফলে গর্ভধারণ ও যৌন সংক্রমণ ব্যাধিতে আক্রান্ত হবার ঝুঁকির পাশাপাশি গুরুতরভাবে আহত হবারও সম্ভাবনা থাকে। তাছাড়া ধর্ষণের শিকার ব্যক্তি ধর্ষকের দ্বারা, এবং কোনো কোনো সমাজে ভুক্তভোগীর নিজ পরিবার ও আত্মীয়স্বজনের দ্বারা সহিংসতার শিকারও হতে পারে।

বিভিন্ন কারণে দিনে দিনে ধর্ষণ বাড়ছে। অতৃপ্ত যৌন আকাঙ্ক্ষা, নগ্ন পোস্টার, ফুটপাতে অশ্লীল ছবি সম্বলিত যৌন উত্তেজক বইয়ের রম রমা ব্যবসা, অশ্লীল পত্রপত্রিকা, অশ্লীল ছায়াছবি প্রদর্শন, ব্লু-ফিল্ম, বাংলা চলচ্চিত্রের খল নায়ক কর্তৃক নায়িকাকে ধর্ষণের দৃশ্য সমাজে, রাস্তঘাটে ধর্ষণ করার উস্কানি দেয়, ইন্টারনেটে অশ্লীল সাইটসমূহ উন্মুক্ত করে দেয়া, প্রেমে ব্যর্থতা, বিয়ের বয়স পেরিয়ে গেলেও ছেলের বিয়ে না দেয়াও জন্ম দেয় ধর্ষণাকাঙক্ষা। আজকাল প্রযুক্তির অপব্যবহার হচ্ছে অহরহ, যৌন উত্তেজক ছবি ও ভিডিও গিলছে বিকৃত মানসিকতার পুরুষেরা। তাছাড়া পুঁজিবাদের বিস্তারের ফলে মানুষের মধ্যকার অস্থিরতা, মানুষের মধ্যকার দূরত্ব বেড়ে গেছে, কমে গেছে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ, সম্মানবোধ, মানুষের প্রতি সহনশীল আচরণ । আর এই সঙ্গে ধর্ষণের বিচারের ক্ষেত্রে একপ্রকার শিথিলতা আমরা লক্ষ্য করি। এটা থেকে বিচাররহীনতার সংস্কতি তৈরি হয়। ধর্ষণের যদি দ্রুত বিচার না হয় তখন একটি ধর্ষণ আর একটি ধর্ষণের ঘটনার জন্ম দেয়।

পুলিশ সদর দফতরের এক পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২০১৩ সালে ধর্ষণের ঘটনায় সারাদেশে মামলা দায়ের হয়েছিল ৩ হাজার ৬ শত ৫০ টি। ২০১৪ সালে মামলা দায়ের হয়েছিল ৩ হাজার ৬শত ৩৫ টি। ২০১৫ সালে ৩ হার ৯ শত ৩০ টি, ২০১৬ সালে ৩ হাজার ৭ শত ২৮ টি, ২০১৭ সালে ৩ হজার ৯ শত ৯৫ টি। আর মহিলা পরিষদের পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২০১৭ সালে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ৯৬৯, সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছে ২২৪ জন আর ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ৫৮ জনকে। ধর্ষণের পর হত্যা চেষ্টা করা হয়েছে ১৮০ জনকে।

২০১৭ সালের সবচেয়ে আলোচিত ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে বনানীর ‘রেনট্রি হোটেলে’। ২৮ মার্চ রাত ৯টা থেকে পরদিন সকাল ১০টা পর্যন্ত দুই তরুণীকে আটকে রেখে উপর্যুপরি ধর্ষণের অভিযোগে ঘটনার ৩৯ দিন পর বনানী থানায় মামলা হয় । এর ৫ দিন পর আসামী সাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফকে সিলেট থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে অন্য আসামীরাও গ্রেফতার হয়। শুধু রাজধানীতে নয়, বগুড়া শহর শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকার এক কিশোরীকে ধর্ষণের পর মা ও ভুক্তভোগী মেয়েকে মাথা ন্যাড়া করার ঘটনাও আলোচিত হয়েছে সারা দেশে। বদলে গেছে ধর্ষণের চরিত্রও। আগে ধর্ষণ হতো গোপনে, চেষ্টা থাকতো বিষয়টা গোপন রাখার। এখন বাসে ট্রেনে ওপেন প্লেসে ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে অহরহ। নেই কোন লাজ-লজ্জা, নেই ভয়-ডর।

ধর্ষণের ঘটনা ঘটে পৃথিবীব্যাপী। কঠোরতম আইন প্রয়োগ করেও ধর্ষণ ঠেকানো যায়না। পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি ধর্ষণের ঘটনা ঘটে যথাক্রমে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ আফ্রিকা, সুইডেন, ভারত, জার্মানী, ফ্রান্স, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া ডেনমার্ক এই ১০ টি দেশে। পাশের দেশ ভারতে ২০১২ সালে বাসের মধ্যে একটি মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনা পৃথিবীব্যাপী তোলপাড় তুলেছিল। এরপর ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে প্রহরা জোরদার করার পরও ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে প্রতি মুহূর্তে। সুইডেনে প্রতি চারজনে একজন মহিলা ধর্ষিতা হন। যুক্তরাষ্ট্রে বছরে ৮৫ হাজার মহিলা ধর্ষিতা হন আর প্রতিবছর যৌন হয়রানির শিকার হন ৪০ হাজার মহিলা। দক্ষিণ আফ্রিকায় কমবয়সী ও শিশুকন্যা ধর্ষণের ঘটনা ঘটে সবচেয়ে বেশি।

ধর্ষণ এমন একটি অপরাধ যার জন্য কঠোরতম শাস্তি হওয়াই বাঞ্চনীয়। পৃথিবীর অনেক দেশে এমন ব্যবস্থাও আছে। সমাজতান্ত্রিক দেশ চীনে ধর্ষণের শাস্তি শুধুমাত্র ‘মৃত্যুদন্ড’ আর সেটা কার্যকরও করা হয় খুব দ্রুত। ইরাণেও ধর্ষণের শাস্তি হয় ফাঁসি না হয় সরাসরি গুলি। আফগানিস্তানে ধর্ষক ধরা পড়লে সোজাসুজি তাকে মাথায় গুলি করে মারা হয়। ফ্রান্সে অপরাধ প্রমাণিত হলে কমপক্ষে ১৫ বছরের জেল হয় কখনও কখনও তা ৩০ বছর পর্যন্ত হয়। উত্তর কোরিয়ায় অভিযোগ প্রমাণ হলে গুলি করে মারা হয় অপরাধীকে। সৌদি আরবে ধর্ষককে প্রকাশ্যে বেত্রাঘাত করা হয়।

আমাদের দেশে বাংলাদেশ দণ্ডবিধি (১৮৬০) ধারা ৩৭৬ ও নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০৩-এর সেকশন ৯ অনুযায়ী ধর্ষণের সাজার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। তবে ধর্ষণের সাজা মৃত্যুদন্ড নয়, ১০ বছর পর্যন্ত কারাদন্ড এবং জরিমানা। ধর্ষণের কারণে মৃত্যু হলে সাজা মৃত্যুদণ্ড।

এদেশে আইন কার্যকর হয়না প্রশাসনের অবহেলা ও বিভিন্ন রাজনৈতিক অরাজনৈতিক চাপের কারণে। অনেক সময় সমাজের নেতৃস্থানীয় লোক, প্রশাসন ও পুলিশ সমঝোতার চেষ্টা করতে বলে। যা মোটেও করা উচিত নয়। একটি সমঝোতা আর একটি ধর্ষণে সহযোগিতা করে। তাই পুলিশের উচিত ঘটনা ঘটার সঙ্গে সাথেই ব্যবস্থা নেয়া। আর ধর্ষণের মতো ঘৃণ্য অপরাধের যথোপযুক্ত বিচার যাতে নিশ্চিত হয় সে ব্যবস্থা নেয়া। এ ব্যাপারে সচেতন হতে হবে জনগণকেও।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআর

আরোও পড়ুন
সর্বাধিক পঠিত
মনোনয়ন ফরম কিনেছেন যে তারকারা
মনোনয়ন ফরম কিনেছেন যে তারকারা
প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে নির্মিত ছবি ‘হাসিনা- এ ডটারস টেল’ মুক্তি পাচ্ছে
প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে নির্মিত ছবি ‘হাসিনা- এ ডটারস টেল’ মুক্তি পাচ্ছে
বিয়ের পিঁড়িতে আবু হায়দার রনি
বিয়ের পিঁড়িতে আবু হায়দার রনি
কুমিল্লায় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী প্রায় চুড়ান্ত !
কুমিল্লায় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী প্রায় চুড়ান্ত !
প্রধানমন্ত্রীর আসনে প্রার্থী দেবে না ড. কামাল
প্রধানমন্ত্রীর আসনে প্রার্থী দেবে না ড. কামাল
উত্তাপ বাড়ছে নোয়াখালী-৫ আসনে
উত্তাপ বাড়ছে নোয়াখালী-৫ আসনে
স্বামীকে খুশির খবর দিলেন আনুশকা, জানেন কী?
স্বামীকে খুশির খবর দিলেন আনুশকা, জানেন কী?
প্রভার বিয়ের আয়োজন!
প্রভার বিয়ের আয়োজন!
মদেই ‘বেসামাল’ প্রিয়াঙ্কা!
মদেই ‘বেসামাল’ প্রিয়াঙ্কা!
জন্ম ভারতে, পর্ন স্টার আমেরিকার!
জন্ম ভারতে, পর্ন স্টার আমেরিকার!
বাবা-মা’কে ‘টপকে’ গেলেন সোহানা!
বাবা-মা’কে ‘টপকে’ গেলেন সোহানা!
পর্ন সাইটে হিনার ‘রগরগে’ ছবি!
পর্ন সাইটে হিনার ‘রগরগে’ ছবি!
‘বিছানায় তো হরহামেশাই যেতে হয়’
‘বিছানায় তো হরহামেশাই যেতে হয়’
অরুণ হাতের নখ কাটেনি ২৫ বছর!
অরুণ হাতের নখ কাটেনি ২৫ বছর!
বিএনপির কার্যালয়ে ছিনতাইয়ের কবলে ফটোসাংবাদিক
বিএনপির কার্যালয়ে ছিনতাইয়ের কবলে ফটোসাংবাদিক
অভিনেত্রীকেই শেখালেন অভিনেত্রী, কী জানেন?
অভিনেত্রীকেই শেখালেন অভিনেত্রী, কী জানেন?
সুস্মিতার বিয়ে পাকা ১৪ বছরের ছোট প্রেমিকের সঙ্গে!
সুস্মিতার বিয়ে পাকা ১৪ বছরের ছোট প্রেমিকের সঙ্গে!
মোনালিসার বিয়ে, পাত্র কে জানেন?
মোনালিসার বিয়ে, পাত্র কে জানেন?
আদালতে যা বললেন খালেদা জিয়া
আদালতে যা বললেন খালেদা জিয়া
​সম্পর্ক ছিল না তাদের, তবুও সমালোচনায়...
​সম্পর্ক ছিল না তাদের, তবুও সমালোচনায়...
শিরোনাম:
তরুণদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর শুক্রবারের ‘লেটস টক’ অনুষ্ঠান স্থগিত তরুণদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর শুক্রবারের ‘লেটস টক’ অনুষ্ঠান স্থগিত ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে দেখা করতে ধানমন্ডিতে যুক্তফ্রন্ট নেতারা ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে দেখা করতে ধানমন্ডিতে যুক্তফ্রন্ট নেতারা নির্বাচনে সবাই অংশ নিলে জোর-জবরদস্তির সুযোগ থাকবে না: বাণিজ্যমন্ত্রী নির্বাচনে সবাই অংশ নিলে জোর-জবরদস্তির সুযোগ থাকবে না: বাণিজ্যমন্ত্রী ভোটের তারিখ পেছানোর আর সুয়োগ নেই: সিইসি, সরকার বহাল রেখে নির্বাচন সুষ্ঠু হয়, তা প্রমাণ হবে ভোটের তারিখ পেছানোর আর সুয়োগ নেই: সিইসি, সরকার বহাল রেখে নির্বাচন সুষ্ঠু হয়, তা প্রমাণ হবে