ঢাকা, শনিবার   ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,   ফাল্গুন ১০ ১৪২৫,   ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪০

একজনকে উদ্ধার করতে সাতশ উদ্ধারকারী!

মেহেদী হাসান শান্ত ডেইলি-বাংলাদেশ

 প্রকাশিত: ১১:০২ ৯ জুলাই ২০১৮  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

২০১৪ সালের জুনের শুরুর দিকে জার্মানির একটি গুহা অভিমুখে অভিযানে নামেন ৫২ বছর বয়সী পদার্থবিজ্ঞানী ও অভিযাত্রী জোহান ভেস্থাসার। গুহাটির গভীরতা ছিলো ১২ মাইল! এটিই জার্মানির গভীরতম গুহা। ১৯৯৫ সালে আবিষ্কারকদের যে দল গুহাটি আবিষ্কার ও এর গভীরতা পরিমাপ করেন, জহান ভেস্থাসার ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম। ২০০২ সালে তিনি আবার গুহাটির কাছে ফিরে আসেন। তার সাথে ছিলেন আরও দুই মৌসুমী অভিযাত্রী।

কিন্তু তাদের এক যুগের অভিজ্ঞতা পণ্ড হয়ে যায় হঠাৎ। ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় চার কিলোমিটার গভীরে জোহানের মাথা একটা গড়িয়ে পড়া পাথরের সাথে আটকে যায়। এতই বিশ্রীভাবে যে, হেলমেট থাকার পরও তিনি মস্তিষ্কে আঘাত পান। তাদের কাছে তখন কোনো মোবাইল ফোন ছিলো না। এক সহকর্মী কোনো রকমে উপরে উঠে উদ্ধার কর্মীদের জড়ো করতে সক্ষম হন। জোহান ভেস্থাসারকে উদ্ধার করতে গিয়ে খরচ হয় প্রায় এক মিলিয়ন ইউরো! উদ্ধারকাজে নিয়োজিত ছিলেন ৫টি দেশের ৭২৮ জন উদ্ধার কর্মী। এবং উদ্ধার কাজ শেষে পুলিশ গুহাটির মুখ চিরতরে বন্ধ করে দেয়।

উদ্ধারকারীদের জানানোর কয়েক ঘণ্টা পর ১১ জন উদ্ধারকারী পাথর খুঁড়ে নিচে নামতে শুরু করেন। তাদের ভাষ্যমতে গুহাটি ছিলো যেন মাটির তলায় এভারেস্ট! কারণ গুহাটি ছিলো প্রচণ্ড খাড়া ও গভীর। জায়গায় জায়গায় ছিলো গভীর খাদ। দক্ষ ক্লাইম্বারদের জন্যও কাজটি বেশ কঠিন হয়ে উঠছিল। কিছু কিছু খাদ ছিলো হাজার ফুটের মতো গভীর। ওগুলোতে খোঁজ করতে গেলে নেমে আবার অতটা পথ উঠতে হতো, যা ছিলো ভয়ানক ঝুঁকিপূর্ণ।


জোহান ভেস্থাসার 

উদ্ধারকারীরা ভেস্থাসারকে উদ্ধার করতে একটি আন্ডারগ্রাউন্ড কেইভ-লিংক সিস্টেম গড়ে তোলেন, যা শত শত মিটারের পাথরের স্তরের মধ্য দিয়েও তাঁর অবস্থান শনাক্ত করতে পারে। উদ্দেশ্য ছিলো তাঁর সন্ধান পাওয়া গেলে একজন চিকিৎসক গিয়ে তাকে দেখবেন। চিকিৎসক তার অবস্থা যাচাই করার পর তাকে উপরে তুলে আনা হবে। পুরো চারটি দিন লাগলো একজন চিকিৎসকের ভেস্থাসারের কাছে পৌছতে! চিকিৎসক তার কাছে পৌঁছে জানালেন, ভেস্থাসার মস্তিষ্কে অল্প আঘাত পেলেও তিনি ভালোভাবেই জীবিত আছেন । তাকে ফাইবারগ্লাস দিয়ে মুড়িয়ে উপরে তোলা হলো। কিন্তু ১০০০ মিটার খাড়া গুহার ভেতর এ কাজ করা খুবই কষ্টসাধ্য ছিলো।

টানা ১১ দিন আটকা থাকার পর জোহান ভেস্থাসারকে উদ্ধার করে হেলিকপ্টার দিয়ে পার্শ্ববর্তী হাসপাতালে নেয়া হয়। একজন লোককে বাঁচাতে সাত শতাধিক লোকের প্রায় ৩০০ ঘণ্টার পরিশ্রম সফল হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ