এই শহরে প্রায় সবাই পরকীয়ায় জড়িত!

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৪ ১৪২৬,   ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

এই শহরে প্রায় সবাই পরকীয়ায় জড়িত!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৪৯ ২১ মে ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

সাধারণ প্রেমের গল্পের চেয়ে পরকীয়ার ‘মশলাদার’ গল্প অনেক বেশি মুখরোচক, অনেক বেশি আকর্ষণীয়। একই কারণে পরকীয়া সম্পর্কের প্রতি ঝোঁকটাও অনেকটাই বেশি। তবে ইচ্ছে থাকলেও বিপদে পড়ার ভয়ে বা প্রতারিত হওয়ার আশঙ্কায় পরকীয়া সম্পর্কের ধারে-কাছেও ঘেঁষেন না। তা সত্ত্বেও বিবাহিত জীবনের ‘এক ঘেয়েমি’ কাটাতে অনেকেই পরকীয়া সম্পর্কের দিকে পা বাড়ান।

দীর্ঘদিন ভারতীয় দণ্ডবিধিতে, বিবাহ বহির্ভূত শারীরিক সম্পর্ককে ‘ফৌজদারি অপরাধ’ বলে ধরা হত। তবে সম্প্রতি, সেপ্টেম্বর ২০১৮-এ সুপ্রিম কোর্ট পরকীয়ার ক্ষেত্রে ভারতীয় দণ্ডবিধির ওই আইনকে ‘অসাংবিধানিক’ বলে রায় দেয়া হয়। আর এরপর দেশের পরকীয়-কামীদের সুপ্ত বাসনায় যেন বাঁধ ভাঙা জোয়ার এসেছে। আর এই জোয়ারে সবচেয়ে বেশি গা ভাসিয়েছে বেঙ্গালুরু! 

কারণ, সাম্প্রতিক একটি সমীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী এই শহরের প্রায় ১ লাখ ৩৫ হাজার মানুষ সক্রিয়ভাবে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িত।

সম্প্রতি একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে জনপ্রিয় ডেটিং কমিউনিটি প্ল্যাটফর্ম ‘গ্লিডেন’। এটি মূলত ফ্রান্সের একটি ডেটিং কমিউনিটি প্ল্যাটফর্ম যা ইদানীং ভারতেও যথেষ্ট জনপ্রিয়তা পেয়েছে। 

‘গ্লিডেন’ তার সমীক্ষার রিপোর্টে দাবি করেছে, এই মুহূর্তে ভারতে তাদের সক্রিয় ইউজার সংখ্যা ৫ লক্ষেরও বেশি। এই মধ্যে ১ লাখ ৩৫ হাজার ইউজারই বেঙ্গালুরুর বাসিন্দা। এর মধ্যে রয়েছেন, ৪৩ হাজার মহিলা ও ৯১ হাজার ৮০০ জন পুরুষ। আর অনেকেই বলছেন এ শহরে প্রায় সবাই পরকীয়ায় আশক্ত।

সংস্থার দেয়া তথ্য অনুযায়ী, এই সংখ্যাটা ভারতের যে কোনো শহরের তুলনায় অনেকটাই বেশি।

বিশেষজ্ঞদের মতে, বেঙ্গালুরু হল ভারতের আইটি শহর। এ শহরে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অসংখ্য মানুষ কাজ করতে আসেন, বছরের পর বছর থাকেন। এদের মধ্যে অনেকেই নিজের পরিবারের থেকে দূরে, অচেনা শহরে একা থাকেন। ফলে এই একাকিত্ব কাটাতে নতুন কারো সঙ্গে বন্ধুত্ব বা সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এই সম্পর্কগুলির মধ্যে সবকটি শারীরিক সম্পর্কের দিকে না-ও গড়াতে পারে!

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস