Alexa এই দিনেরে নিবা তুমি সেই দিনেরও কাছে

ঢাকা, শুক্রবার   ২৩ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৮ ১৪২৬,   ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

এই দিনেরে নিবা তুমি সেই দিনেরও কাছে

মুনিম হাসান

 প্রকাশিত: ১৬:৩৩ ২ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৮:০৫ ২ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছে টিম বাংলাদেশ। দুই টেস্ট জয়কে অবধারিতই ভাবা হয়েছিল। দেশের মাটিতে ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়াকে টেস্ট হারানোর পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই টেস্টে জয় পাওয়াটা তাই অতিরিক্ত চাওয়া নয়। চট্টগ্রামে ৬৪ রান ব্যবধানে জয়ের পর একটি সাধারণ জয়ের অপেক্ষায় ছিল মিরপুর। কিন্তু শের-ই- বাংলা স্টেডিয়ামে ইতিহাস গড়ল সাকিব-মিরাজরা। দেশের ১৮ বছরের টেস্ট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ইনিংস ব্যবধানে জিতল বাংলাদেশ। ব্যবধানটাও নেহাত কম নয়। ইনিংস ও ১৮৪ রান।

এই জয়টির মাহাত্ম্য অনেক। কারণ এই জয়ের মাধ্যমে পুরনো সময়ে বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেট স্মৃতি চোখে ভাসা স্বাভাবিক। প্রতিপক্ষ প্রায় দেড়দিন ব্যাট করবে। শেষ সেশনে ব্যাটিংয়ে নামবে ক্লান্ত শ্রান্ত বাংলাদেশ। ৫-৬ উইকেট হারিয়ে ইনিংস পরাজয়ের সামনে দাঁড়িয়ে থাকবে দুই দিনেই। সারারাত সমর্থকরা আশায় থাকবে কেউ একজন ব্যাট হাতে দাঁড়িয়ে পড়বে। অন্তত হলেও প্রথম সেশন ব্যাট করবে। কিন্তু ঘটত উল্টো। পরদিন সকালের শুরুতেই অলআউট বাংলাদেশ। চা-বিরতির আগেই ইনিংস পরাজয়ের লজ্জা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হতো। এটাই ছিল নিয়তি। কোনোদিন বাংলাদেশ ঠিক এমনটাই প্রতিপক্ষকে উপহার দেবে তা যেন কল্পনা ছাড়া আর কিছুই নয়।

কিন্তু এই সিরিজ সেই পুরনো স্মৃতিকেই এনে দিয়েছে। তবে এবার আর বাংলাদেশের জন্যে নয়। সাকিবরা এমন সময় এনে দিয়েছে প্রতিপক্ষের জন্য। বাংলাদেশের একেকটি উইকেটের জন্য ক্যারিবীয়দের তীর্থের কাকের মতো অপেক্ষা। একটা সময় ক্লান্ত হোপস মাঠে শুয়েই পড়লেন। ১৫০ ওভার ফিল্ডিংয়ের পর শেষ বিকেলে ব্যাটিং। দিন শেষ হওয়ার আগে ৫ উইকেট নেই। তখনই ইনিংস পরাজয়ের সামনে এক সময়ের প্রতাপশালীরা। তৃতীয় দিন সকালে হুড়মুড় করে মিরাজ গুঁটিয়ে দিলেন প্রতিপক্ষের লেজ। ফলোঅনের পড়ল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তখন থেকেই অপেক্ষা প্রথমবারের মতো ইনিংস ব্যবধান জয়ের। আর তা পুরোপুরি বাস্তবায়ন করলেন স্পিনাররা।

কিছুদিন আগেই একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে তাদের মাটিতে খেলতে গিয়ে লজ্জাজনক হার। এবারে যখন নিজের দেশের মাটিতে প্রতিপক্ষকে পেলেন, দলের খেলোয়াড়দের উজ্জীবিত করতে যুতসই টোটকাই দিয়েছিলেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। বলেছিলেন, "ওদের মাটিতে কিভাবে হেরেছিলাম ভুলে যেও না।" আর তাতেই দল যেন টগবগিয়ে উঠেছে। প্রতিটি খেলোয়াড় নিজের সেরাটা দেয়া চেষ্টা করেছে।

এই জয় বাংলাদেশের জন্য নিঃসন্দেহে একটি মাইলফলক। এই জয় গৌরবের, এই জয় আত্মতৃপ্তির। যে হারে বিদীর্ণ হতো সমর্থকদের হৃদয়; ঠিক একইরকম হার উপহার দিয়ে প্রতিপক্ষকে জানান দেয়া " এই দিনই দিন নয় আরো দিন আছে, এই দিনেরে নিবা তুমি সেই দিনেরই কাছে।"

বাংলাদেশ সেই পুরনো দিনকে টেনে এনেছে তবে তা প্রতিপক্ষের জন্য। এই জয় অনেক ক্ষত-বিক্ষত সময়ের প্রতিত্তর। সাকিবদের দেখানো পথেই নতুন উঠে আসা মিরাজ-সাদমান-নাঈমরা এই দিনকে দীর্ঘায়িত করবে এমনটাই তো সমর্থকদের চাওয়া।  

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ

Best Electronics
Best Electronics