ঈদ শেষে ঢাকায় ফিরতে ডিএমপির সতর্কতা

ঢাকা, বুধবার   ১৯ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৫ ১৪২৬,   ১৪ শাওয়াল ১৪৪০

ঈদ শেষে ঢাকায় ফিরতে ডিএমপির সতর্কতা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৫৮ ৮ জুন ২০১৯  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে অনেকেই ছুঁটে গেছিলেন গ্রামে। ঈদ শেষে এবার রাজধানীতে ফেরার পালা। এরই মধ্যে অনেকে ফিরতে শুরুও করেছে। আবার অনেকে ঝামেলা এড়াতে আগেই চলে এসেছেন। যারা এখনো ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হননি, তাদের জন্য কিছু সতর্ক নির্দেশনা দিয়েছে  ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। সেই সঙ্গে বিষয়গুলো মেনে চলার জন্য অনুরোধ করা হল।

ঈদ শেষে ফেরার পথে সতর্কতা:

১.অতিরিক্ত যাত্রী হয়ে বাস, ট্রেন ও লঞ্চে উঠবেন না।
২.তাড়াহুড়ো করে কিংবা ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় যানবাহনে উঠবেন না।
৩.ট্রেনের ছাদে কিংবা বাসের ছাদে চড়া থেকে বিরত থাকুন।
৪.নদীপথে ফেরার সময় ছোট শিশুদের হাতছাড়া করবেন না। বাচ্চাদের নিয়ে লঞ্চের রেলিংয়ের পাশে দাঁড়াবেন না।
৫.ফেরার পথে রাস্তার পাশে ডাব বা পানীয় জিনিস খাওয়া থেকে সতর্কতা অবলম্বন করুন।
৬.রাস্তায় বাস-ট্রেন বা লঞ্চ টার্মিনালে পকেটমার ও দুষ্কৃতিকারী থেকে সাবধান থাকুন।
৭.অপরিচিত কারো সঙ্গে ভাগাভাগি করে গাড়ি ভাড়া করবেন না বা গাড়িতে উঠবেন না।
৮.রাস্তায় অপরিচিত কারো কাছ থেকে কোন কিছু খাবেন না।
৯.সহযাত্রী বেশে থাকা অজ্ঞান পার্টি ও মলম পার্টির খপ্পর থেকে সাবধানতা অবলম্বন করুন।
১০.মধ্য কিংবা শেষ রাতে বাসস্ট্যান্ড, লঞ্চ টার্মিনাল ও রেলস্টেশনে নামলে সতর্কতার সঙ্গে চলাচল করুন।
১১.প্রয়োজনে আপনার আশপাশে থাকা নিকটস্থ পুলিশের সহায়তা নিন।
১২.মূল্যবান সামগ্রী, টাকা-পয়সা, মোবাইল ও হ্যান্ডব্যাগ বহনে সাবধানতা অবলম্বন করুন।
১৩.ফেরার পথে বাস অথবা ট্রেনের জানালা দিয়ে হাত বাইরে রাখবেন  না।
১৪.ফেরার পথে বাসের মধ্যে ঘুমিয়ে পড়বেন না। যানবাহনের মধ্যে উচ্চস্বরে গান বাজনা করা থেকে বিরত থাকুন।
১৫.গন্তব্যস্থলে পৌঁছানোর পর আপনার মালামাল ভালো করে বুঝে নিন। তাড়াহুড়ো করলে আপনার কোনো মূল্যবান জিনিস ফেলে যেতে পারেন। প্রয়োজনে যোগাযোগ করুন:

পুলিশ কন্ট্রোল রুম: ০১৭১৩-৩৯৮৩১১, ৯৫৫৯৯৩৩, ৯৫৫১১৮৮, ৯৫১৪৪০০। ট্রাফিক কন্ট্রোল রুম: ০১৭১১-০০০৯৯০, ০১৭০৭-৮০৬১১১, ০১৭০৭-৮০৬২২২, ০১৭০৭-৮০৬৮৮৮। জাতীয় জরুরি সেবা: ৯৯৯।
ঈদ শেষে আপন কর্মস্থলে স্বস্তিতে ফেরার জন্য প্রয়োজন নিজের কিছু বাড়তি সতর্কতা। যা আপনার ফিরতি যাত্রা নির্বিঘ্ন করবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/ইএ/এসবি/এমআরকে