ইমাম নিয়োগ নিয়ে মারামারি, প্রাণ গেল একজনের

ঢাকা, শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২১ ১৪২৬,   ১০ শা'বান ১৪৪১

Akash

ইমাম নিয়োগ নিয়ে মারামারি, প্রাণ গেল একজনের

পাবনা প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:১৮ ২১ মার্চ ২০২০  

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

পাবনা সদর উপজেলার মালিগাছা ইউপির ভজেন্দ্রপুর গ্রামে মসজিদের ইমাম নিয়োগকে কেন্দ্র করে প্রতিবেশীর লোকজনের হাতে পিটুনিতে ইয়াছিন প্রামাণিক নামে একজন মারা গেছেন।

শনিবার ভোরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় পুলিশ নাসিম মন্ডল নামে একজনকে আটক করেছে।

শুক্রবার জুমা নামাজের পর ভজেন্দ্রপুর মসজিদে ইমাম নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে মসজিদ কমিটিসহ মুসল্লিদের এক বৈঠক বসে। ওই বৈঠকে ইমান মন্ডলের সঙ্গে প্রতিবেশী রাজাই প্রামাণিকের ছেলে ইয়াছিন প্রামাণিকের কথা কাটাকাটি হয়। এরই এক পর্যায়ে ইমান মন্ডল মোবাইল ফোনে তার ছেলে ও নাতিদের খবর দেন। খবর পেয়ে ছেলে নাসিম মন্ডল, সোহানুর রহমান সোহান মন্ডল, নাতি গোলাম রাব্বি ও লিটন ঘটনাস্থলে গিয়ে ইয়াছিন প্রামাণিককে মারধর করে। এতে ইয়াছিন প্রামানিক গুরুতর আহত হন।

স্থানীয়রা তাকে প্রথমে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় শুক্রবার বিকেলেই তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন চিকিৎসক। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার ভোরে তিনি মারা যান।

নিহত ইয়াছিন প্রামাণিকের ভাই কলেজ শিক্ষক শাহাদত হোসেন জানান, মসজিদ কমিটি ও স্থানীয় গ্রামবাসী সম্মিলিতভাবে মসজিদের ইমাম নিয়োগের পক্ষে রয়েছেন। তবে অনিয়ম ও অনৈতিকভাবে ইমাম নিয়োগে চাপ দেন স্থানীয় ইমান মন্ডল। গ্রামবাসী তার কথা মেনে না নেয়ায় তিনি ক্ষুদ্ধ হয়ে তার ছেলে ও নাতিদের মোবাইলে খবর দেন। খবর পেয়ে ইমান মন্ডলের ছেলে নাসিম মন্ডল, সোহানুর রহমান ওরফে সোহান মন্ডল, নাতি রাব্বি ও লিটন ঘটনাস্থলে গিয়ে তার ভাই ইয়াছিনকে বেদম মারপিট করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার ভাই মারা গেছেন।  

পাবনা সদর থানার ওসি নাসিম আহমেদ বলেন, ঘটনার মূল হোতা নাসিম মন্ডলকে আটক করা হয়েছে। মামলা হয়েছে। বাকিদের আইনের আওতায় আনা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ