ঢাকা, রোববার   ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,   ফাল্গুন ৫ ১৪২৫,   ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪০

ইজতেমা মাঠে সংঘর্ষে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে

গাজীপুর প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৮:০১ ৮ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৮:৫১ ৮ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গাজীপুরের টঙ্গীর ইজতেমা মাঠে সংঘর্ষে ঘটনায় দায়ের করা মামলাগুলো তদন্ত শেষে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শনিবার বিকেলে গাজীপুরের টঙ্গীর ইজতেমা ময়দান পরিদর্শন ও তাবলিগের মুরুব্বিদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, নির্বাচনের পর যথা সময়েই বিশ্ব ইজতেমা হবে বলে আমরা বিশ্বাস করি। সারা দেশের মানুষ এর দিকে তাকিয়ে আছে। ইজতেমায় মুসুল্লিরা এখানে আসেন ইবাদতের জন্য, ধর্মীয় কাজে। তারা মাঠের কাজের জন্য, তাবলিগের মেহনতের জন্য এসেছে।

এরা কিভাবে মারামারি করে তার জন্য প্রশাসনের কেউ প্রস্তুত ছিল না। প্রশাসনের লোকজনের সামনে জোর করে একটি পক্ষ ইজতেমা ময়দানে প্রবেশ করে। আমরা ভেবেছিলাম তারা ইজতেমা ময়দানে প্রবেশ করে প্রস্তুতি সভা করবে। কিন্তু তারা তা না করে ভাঙচুর করে এবং এখানে যারা ছিলেন তাদের আহত করলেন।  এটা সত্যিই দুঃখ জনক ঘটনা।

যেহেতু এখানে একটি হত্যাকাণ্ড হয়েছে, তিনজন সাথী মৃত্যু শয্যায় রয়েছে এবং বেশ কিছু আহত হয়েছেন। এজন্য থানায় ও আদালতে তিনটি মামলা হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, অবশ্যই ইজতেমা হবে। দুই পক্ষ আবার বসে তাদের মধ্যে যে ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে তা ক্লিয়ার করবে এবং ইজতেমা আবার হবে এটা আমরা বিশ্বাস করি। এবারই প্রথম একটু ঝামেলা হয়েছে।

এসময় মন্ত্রীর সঙ্গে গাজীপুর ২ আসনের এমপি মো. জাহিদ আহসান রাসেল, সিটি মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম, আইজিপি জাবেদ পাটোয়ারি, জিএমপি কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান, ডিসি ড. দেওযান মুহাম্মদ হুমাযূন কবীর, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মতিউর রহমান মতিসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং স্থানীয় নেকাকর্মী ও তাবলিগের মুরব্বীরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী ইজমোর মাঠে সংঘর্ষে ভাঙচুরের বিভিন্ন আলামত পরিদর্শন করেন এবং তাবলিগের মুরুব্বিদের সঙ্গে কথা বলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ