ইউএনও মামলার সেই বিচারকের লাখ টাকা ভাড়া বকেয়া

ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৬,   ১৯ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

ইউএনও মামলার সেই বিচারকের লাখ টাকা ভাড়া বকেয়া

 প্রকাশিত: ১৫:৫৫ ২২ জুলাই ২০১৭  

ইউএনও তারিক সালমানকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া বিচারক মো. আলী হোসেন বরিশাল সার্কিট হাউস ব্যবহারের ভাড়া পরিশোধ করেননি এরপর একটি বছর পের হয়ে গেলেও। তারিক সালমানের ঘটনা নিয়ে আলোচনার মধ্যে ৯৩ হাজার ৯৫০ টাকা বকেয়া পরিশোধে গত বছরের অগাস্ট মাসে বিচারক আলী হোসেনকে পাঠানো বরিশালের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর কল্যাণ চৌধুরী স্বাক্ষরিত একটি চিঠি প্রকাশ পেয়েছে। বরিশাল মুখ্য মহানগর বিচারিক হাকিম আলী হোসেনকে আট মাস দুই দিন সার্কিট হাউজ ব্যবহার বাবদ ওই অর্থ পরিশোধে পুনরায় অনুরোধ জানানো হয় ওই চিঠিতে। চিঠিতে বলা হয়, তিনি ২০১৫ সালের ২৭ অক্টোবর থেকে ২০১৬ সালের ২৮ জুন পর্যন্ত সার্কিট হাউজের ৭ নম্বর কক্ষটির চাবি নিজের হেফাজতে রাখেন। এর মধ্যে পাঁচ দিনের ভাড়া পরিশোধ করলেও বাকি ভাড়া পরিশোধ করেননি। সার্কিট হাউজ ব্যবহারের জন্য প্রথম তিন দিন ৯০ টাকা হারে, পরের চার দিন ১২০ টাকা হারে এবং তারপর দৈনিক ৪০০ টাকা হারে তার কাছে ৯৩ হাজার ৯৫০ টাকা পাওনা হয়েছে বলে চিঠির ভাষ্য। গত বছরের ৪ অগাস্ট এই চিঠি পাঠানোর আগে ২৬ মে আরেকটি চিঠিও দেওয়া হয়েছিল বিচারক আলী হোসেনকে। তাতে সাড়া না মেলায় দ্বিতীয় চিঠিটি দেওয়া হয়। এই বিষয়ে সর্বশেষ অবস্থা জানতে চাইলে বরিশালের জেলা প্রশাসক গাজী মো. সাইফুজ্জামান শুক্রবার রাতে  বলেন, “তিনি (আলী হোসেন) এখনও ভাড়া পরিশোধ করেননি।” এ নিয়ে কথা বলতে বিচারক আলী হোসেনকে শুক্রবার রাতে ফোন করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। শনিবার সকাল পৌনে ১১টায় একবার রিং হলেও তিনি ফোন ধরেননি। এরপর আবার ফোন করা হলে তা বন্ধ পাওয়া গেছে। বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতির অভিযোগে বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক ওবায়েদ উল্লাহ সাজুর এক মামলায় বুধবার বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সালমানকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছিলেন হাকিম আলী হোসেন। দুই ঘণ্টা পর অবশ্য এই ইউএনও জামিনের আদেশ দেন তিনি। তারিক সালমান বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার ইউএনও থাকাকালে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় ১০ বছরের এক শিশুর আঁকা বঙ্গবন্ধুর ছবি স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে ব্যবহার করেছিলেন, যাতে ছবি বিকৃত করা হয়েছে বলে আওয়ামী লীগ নেতা সাজুর অভিযোগ। তারেক সালমানকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়ার পরপরই সরকারি কর্মকর্তাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ দেখা দেয়। কারাগারে পাঠানোর আদেশকে ‘নজিরবিহীন’আখ্যা দিয়ে তার সঙ্গে পুলিশের আচরণের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্টেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতি আসে। এদিকে ওই আওয়ামী লীগ নেতাকে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। ডেইলি বাংলাদেশ/আইজেকে
Best Electronics