Alexa ‘আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দেন’

ঢাকা, রোববার   ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   ভাদ্র ৩১ ১৪২৬,   ১৫ মুহররম ১৪৪১

Akash

নুসরাত হত্যা

‘আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দেন’

ফেনী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:৩৬ ২৫ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ১৩:০০ ২৬ আগস্ট ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

আলোচিত মাদরাসাছাত্রী নুসরাত হত্যা মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা ও পিবিআইয়ের পরিদর্শক শাহ আলমের সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে।

বৃহস্পতিবার থেকে ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে তার সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে। সোমবারও তার সাক্ষ্যগ্রহণ চলবে।

সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট হাফেজ আহাম্মদ বলেন, নুসরাত হত্যা মামলার মূল তদন্ত কর্মকর্তা ও পিবিআই পরিদর্শক শাহ আলমের সাক্ষ্যগ্রহণ বৃহস্পতিবার শুরু হয়। ওই দিন শেষ না হওয়ায় রোববার বাকি সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য দিন ধার্য করে আদালত। এদিনও তার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়নি। সোমবার অবশিষ্ট সাক্ষ্যগ্রহণ হবে।

শাহ আলম রোববার ১২ আসামির আদালতে দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি বিষয়ে বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, আসামিরা স্বেচ্ছায় আদালতে দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন।

তিনি জানান, শুরু থেকে আসামিদের আটক করতে কয়েকজন লোক নিয়োগ করা হয়। পরে তাদের  দেয়া তথ্যে ময়মনসিংহের ভালুকা থেকে নুর উদ্দিন, মুক্তাগাছা থেকে শাহাদাত হোসেন শামীম, রাজধানীর ফকিরাপুল থেকে মকসুদ আলম, বসিলা থেকে হাফেজ আব্দুল কাদেরসহ আসামিদের বিভিন্ন স্থান থেকে গ্রেফতার করা হয়। শাহ আলম বলেন, কয়েকজন আসামির দেয়া তথ্যে অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরো জানান, আসামিরা আদালতে যে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন, তার সঙ্গে তদন্তের সময় বাস্তবতার মিল পাওয়া যায়। এর আগে বৃহস্পতিবার নুসরাত হত্যা মামলায় উদ্ধার করা নানা আলামতের বিষয়ে আদালতে বিস্তারিত বর্ণনা দিয়েছিলেন তিনি।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী শাহজাহান সাজু জানান, নুসরাত হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ কার্যক্রম একদম শেষের দিকে। এ মামলার গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষী অভিযোগপত্র প্রদানকারী কর্মকর্তা পিবিআইয়ের পরিদর্শক শাহ আলমের সাক্ষ্য শেষে যুক্তিতর্ক শুরু হবে। এ মামলার ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে এখন পর্যন্ত ৮৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। পাঁচজন আদালতে স্ব-শরীরে উপস্থিত না হলেও ডকুমেন্টারি সাক্ষ্য দেয়ায় তারা সাক্ষী হিসেবে গণ্য হবেন। কারণ তাদের পক্ষে আদালতে কাগজপত্র জমা দেয়া হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর