Alexa আলোচনায় বিরোধ মিটাও, চীন-ভারত দু’পক্ষকেই পেন্টাগনের বার্তা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১২ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ২৭ ১৪২৬,   ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১

আলোচনায় বিরোধ মিটাও, চীন-ভারত দু’পক্ষকেই পেন্টাগনের বার্তা

 প্রকাশিত: ০২:২৮ ২৩ জুলাই ২০১৭  

চীন-ভারত সম্পর্ক নিয়ে উত্তেজনার ক্রমেই বাড়ছে। গত দেড় মাস ধরে সিকিম সীমান্তে মুখোমুখি দাঁড়িয়ে রয়েছে দু’দেশেরই সেনা। এবার ওই উত্তেজনা কমাতে মাঠে নামল আমেরিকা। ডোকালা নিয়ে দু’দেশের উত্তপ্ত পরিস্থিতির মধ্যে পেন্টাগনের বার্তা, দ্রুত পরিস্থিতি সামাল দিক ভারত-চীন। পেন্টাগনের মতে, পেশী শক্তি দেখানোর জায়গা থেকে সরে এসে, উত্তেজনা কমাতে, আলোচনাই একমাত্র রাস্তা। এবং দ্বিপাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমেই সমস্যা মিটিয়ে ফেলা উচিত। মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের মুখপাত্র গ্রে রস শনিবার এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘চীন-ভারত দু’দেশকেই আলোচনায় বসার ব্যাপারে আগ্রহী হতে হবে। জোরাজুরির অবস্থান নেওয়াটা ঠিক নয়। তাতে পরিস্থিতি কিছুতেই স্বাভাবিক হবে না।’ এ বিষয়ে দু’দেশকেই আলাদাভাবে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে বলে গ্রে জানিয়েছেন। তবে, এর বেশি তিনি কোনো মন্তব্য করতে চাননি। ভারত-চীন পরবর্তী পদক্ষেপ কী নিতে পারে সে বিষয়ে গ্রে বলেন, সেটা ওই দু’দেশেরই ব্যাপার। তবে, আমেরিকা পরামর্শ দেওয়ার আগেই ভারত-চীনের মধ্যে মুখোমুখি কথাবার্তার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। এ মাসের শেষে ব্রিকস গোষ্ঠীর সম্মেলনে যোগ দিতে বেজিং যাবেন ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। সেখানে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের তাপমাত্রা কমতে পারে বলে আশা। তেমনটা ঘটলে ডোকা লা-তেও তার ছাপ পড়বে। পাশাপাশি, বেইজিং-ও নয়াদিল্লির সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক ঠিক রাখতে আগ্রহী। চীনের সরকারি সংবাদ মাধ্যম গ্লোবাল টাইমস-এর একটি নিবন্ধে তেমন দাবি-ই করা হয়েছে। বলা হয়েছে, ডোকা লা সীমান্তের উত্তাপ ভারত-চীন বাণিজ্যিক লেনদেনের ক্ষতি করছে। দু’দেশের মধ্যে সম্পর্কের এই ভালমন্দ টানাপড়েনের মধ্যেই এল মার্কিন পরামর্শ। শান্তির পরিবেশ তৈরির ক্ষেত্রে এটাকে ইতিবাচক বলেই মনে করছেন কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞদের অনেকে। ডেইলি বাংলাদেশ/আইজেকে