আম্ফান তাণ্ডবে আম চাষির স্বপ্ন বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকায়

ঢাকা, বুধবার   ২৭ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৭,   ০৩ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

আম্ফান তাণ্ডবে আম চাষির স্বপ্ন বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকায়

সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:০৪ ২১ মে ২০২০   আপডেট: ২০:০৫ ২১ মে ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

হতাশা যেন কাটছেই না নওগাঁর সাপাহার উপজেলার আম চাষিদের। করোনাভাইরাসে আম বাজারজাত নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় দিন পার করছিলেন। এরইমধ্যে হঠাৎ করে ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তাণ্ডব তাদের লালিত স্বপ্ন তছনছ করে দিলো।

আম্ফান তাণ্ডবে উপজেলার বিভিন্ন ফসলের ক্ষয়ক্ষতিসহ আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আম গাছ থেকে প্রায় শতকরা ৩ থেকে ৪ ভাগ আম ঝরে পড়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বাগানে বাগানে আম কুড়িয়ে বস্তায় বস্তায় আম বাজারে বিক্রি করতে আসলেও আম চাষিদের স্বপ্ন আমের দাম মাত্র ২০ থেকে ৩০ টাকা বস্তা।

জেলার সাপাহার উপজেলায় সর্ববৃহৎ আমের বাজার গড়ে ওঠে সাপাহার উপজেলায়। প্রতিবছরের মতো এবারো সব প্রস্তুতি নিচ্ছেন আম আড়তদাররা। আড়ত মেরামতের কাজ প্রায় শেষ। ঈদের পর থেকে দেশের বিভিন্ন স্থান বা জেলা থেকে আম ব্যাপারীরা আম কেনার জন্য আসবে। অল্প কিছু দিনের মধ্যে আমের কেনা বেচার কথা ছিল। হঠাৎ আম্ফানের তাণ্ডবে উপজেলার আম চাষিদের ব্যাপক ক্ষতি হয়ে গেল। ঈদের পর আম কেনা বেচা শুরু হলে বাজার দর অনুযায়ী ১০০০ টাকা থেকে শুরু করে ২০০০ টাকা দরে কৃষকের স্বপ্ন প্রথমে ওঠা বিভিন্ন জাতের আমগুলো বিক্রি হতো।

উপজেলার আম চাষি বাবলুর রহমান বলেন, বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে আসলে আমরা আমাদের আমগুলো বিক্রি করতে পারবো কিনা সে চিন্তায় ছিলাম। তার মধ্যে ঝড় ঝাপটা শুরু হয়েছে কয়েকদিন আগেও ঝড়ে আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সে ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই ঘুর্ণিঝড় আম্ফান আবারো এই এলাকায় আঘাত করলো। আম্ফানের এই আঘাতে প্রতিটি বাগানে প্রায় অনেক আম মাটিতে ঝরে পড়েছে। 

সাপাহার উপজেলার উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা আতাউর রহমান সেলিম বলেন, সাপাহারে এবার ৮ হাজার ২৫০ হেক্টর জমিতে আম চাষ হয়েছে। এমনিতেই এবার বাগানগুলোতে আম কম ধরেছিল। তারপর এই ঝড়ে অনেক ক্ষতি হয়ে গেল। বাগানগুলো থেকে শতকরা ৩ থেকে ৪ ভাগ আম ঝরে পড়ে চাষিদের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ