Alexa আন্তর্জাতিক গুম দিবসে আলোচনা সভা

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ২ ১৪২৬,   ১৭ মুহররম ১৪৪১

Akash

আন্তর্জাতিক গুম দিবসে আলোচনা সভা

 প্রকাশিত: ২১:৫৮ ৩০ আগস্ট ২০১৮   আপডেট: ২২:০৩ ৩০ আগস্ট ২০১৮

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি তো মানবতার মা। আপনি কি আমাদের কান্না শুনতে পান না? আমাদের কারও প্রতি কোন অনুযোগ, অভিযোগ নেই। শুধু আমাদের হারিয়ে যাওয়া স্বজনদের ফিরিয়ে দিন।’ 

বৃহস্পিতবার আন্তর্জাতিক গুম দিবস উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবে গুম হওয়া পরিবারের পক্ষ থেকে আয়োজিত ‘মায়ের ডাক’ প্রতিবাদী সমাবেশে স্বজনরা এভাবেই প্রধানমন্ত্রী বরাবর আকুতি জানান। 

সমাবেশে সন্তান কাঁদছে বাবার জন্যে। কাঁদতে কাঁদতে চোখের জলে ভিজেছেন সন্তানের জন্যে মা। স্ত্রী কাঁদছে তার স্বামীর জন্যে। ভাইয়ের জন্য কাদছেন বোন। তারা অনেকেই আপনজন হারিয়েছেন কয়েক বছর আগে। আবার কেউ বা স্বজন হারা হয়েছেন কয়েক মাস হলো। এ নিখোঁজ মানুষগুলোর জন্য পরিবারের সদস্যদের শুধু কান্না আর হাহাকার। এছাড়া আর কিই বা করবে তারা। যেনো কোনো উপায় নেই তাদের।  

গুম হওয়া সুমনের বোন আফরোজা ইসলাম বলেন, স্বজন হারানোর বেদনা বড় কষ্টের। দীর্ঘদিন নিখোঁজ থাকা আরও কষ্টের। আমরা সরকারের কাছে আহবান জানাই, আমার ভাইকে ফিরিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা করুন।

সাজেদুল ইসলাম সুমনের নামে গুম হওয়া ব্যাক্তির মা হাজেরা খাতুন বলেন, মায়ের সন্তান ফিরে আসুক মায়ের কোলে। গুম হওয়া সব সন্তানদের তাদের মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিন। আমাদের কোন অভিযোগ নেই। শুধু চাই সন্তান ফিরে আসুক।  এই আশায় পথ চেয়ে বসে আছি।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, ভুল করে গুম করা হয়নি। জেনে শুনেই গুম করা হয়েছে। স্বজনহারা মানুষের কান্না কী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কানে যায় না? অবশ্যই যায়। মানুষ গুম হচ্ছে এটিও সরকার জানে। তবুও তারা কিছু করেন না। সরকার বুঝেশুনেই গুম করছে মানুষ। 

তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে এই সরকার আগামীতে ক্ষমতায় যেতে পারবে না। তাই ভয় দেখাতে গুমের লালন করছে। যারা সন্তানদের কেড়ে নিয়েছে, স্বজনদের গুম করেছে তাদের ভোট না দেয়ার আহবান জানান তিনি।
 
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সি আর আবরার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বরাত দিয়ে বলেন, প্রেমের কারণে মানুষ গুম হয়ে যায়, ব্যবসায় বিফল হয়ে গুম হয়ে যায়, তাহলে স্বজন হারাদের পরিবার মামলা করতে গেলে থানায় মামলা নেওয়া হয় না কেন? গুমের সাথে রাষ্ট্র সম্পৃক্ত না থাকলে অবশ্যই মামলা নেয়া হত। দেশে এমন পরিস্থিতি যে, কখন কাউকে তুলে নেয়া হবে কেউ বলতে পারে না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসবি/জেডআর/এসআই