আদালত বন্ধে প্রধান বিচারপতিকে ৩০১ আইনজীবীর স্মারকলিপি 

ঢাকা, বুধবার   ২৭ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৭,   ০৩ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

আদালত বন্ধে প্রধান বিচারপতিকে ৩০১ আইনজীবীর স্মারকলিপি 

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৪১ ২৬ এপ্রিল ২০২০   আপডেট: ১৫:৪৭ ২৬ এপ্রিল ২০২০

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

বর্তমান  করোনা পরিস্থিতিতে সীমিত আকারে আদালত খোলা রাখা অত্যন্ত  ঝুঁকিপূর্ণ হবে। এ পরিস্থিতিতে আইনজীবীদের জীবন রক্ষায় স্বল্প পরিসরে আদালত খোলার সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে প্রধান বিচারপতিকে স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে।

রোববার প্রধান বিচারপতিকে সাধারণ আইনজীবীদের অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ব্যানারে সুপ্রিম কোর্টের ৩০১ জন আইনজীবী ওই স্মারকলিপি প্রদান করে।

এদিন প্রধান সমন্বয়কারী এস এম জুলফিকার আলী জুনু সুপ্রিম কোর্টের ই-মেইলের মাধ্যমে এবং কুরিয়ারে সাধারণ আইনজীবীদের পক্ষে এ স্মারকলিপি দেন। 

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস সারাবিশ্বে মহামারি আকার ধারণ করেছে। বাংলাদেশে বর্তমানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়িয়েছে এবং মৃতের সংখ্যা দেড়শ’র ঊর্ধ্বে। এমতাবস্থায় শুধু মানুষের জীবন বাঁচানোর সঙ্গে সম্পৃক্ত হাতে গোনা কয়েকটি প্রতিষ্ঠান ছাড়া অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত বন্ধ  ঘোষণা  করা  হয়েছে।  

এ অবস্থায় আদালত খোলা থাকলে আদালতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট, আইনজীবী ও বিচার প্রার্থীরা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই  আদালত সংশ্লিষ্ট  সব স্তরের  কর্মকর্তা, কর্মচারী, আইনজীবী, আইনজীবী সহকারী, মোয়াক্কেল, নিরাপত্তা কর্মীদের  জীবন বাঁচাতে বার কাউন্সিল, সুপ্রিম কোর্টের  সিনিয়র  আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ ও আলোচনা করে সবার মতামত নিয়ে কোর্ট বন্ধ রাখার অনুরোধ জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য, গত ২৩ এপ্রিল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সুপ্রিম কোর্টসহ অধঃস্তন আদালতে ৫মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। এ সময়ে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে চেম্বার কোর্ট ও হাইকোর্ট বিভাগে একটি বেঞ্চ খোলা রেখে অতীব জরুরি বিষয়গুলো নিষ্পত্তিতে সিদ্ধান্ত নেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। 

এরপর গত ২৫ এপ্রিল অপর এক বিজ্ঞপ্তিতে সীমিত আকারে কোর্ট খোলা রাখার সিদ্ধান্ত ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত করেন সুপ্রিম কোর্ট। আর বর্তমান  করোনা পরিস্থিতিতে এখনই আদালত খোলা না রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন প্রবীণ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেনসহ বেশ কয়েকজন সিনিয়র আইনজীবী। 
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর