Alexa আজহারের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে বাকি আরো দুই ধাপ

ঢাকা, শনিবার   ১৬ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রাহায়ণ ১ ১৪২৬,   ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

আজহারের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে বাকি আরো দুই ধাপ

আহমেদ তানভীর ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:২৫ ৩১ অক্টোবর ২০১৯  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় জামায়াতে ইসলামির সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলামকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেয়া মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছে সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। ফলে জামায়াতের এই নেতার মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে বাকি থাকলো আর দুই ধাপ।

নিয়ম অনুযায়ি আপিল বিভাগের রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ করতে পারবেন তিনি। আর রিভউ খারিজ হলে শেষ সুযোগ হিসেবে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষা চাওয়ার সুযোগ পাবেন এটিএম আজহারুল। 

রিভিউ আবেদন খারিজ হলে সরকারের সিদ্ধান্তে কারা কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে শুরু হবে এ যুদ্ধাপরাধীর মৃত্যুদণ্ডের রায় কার্যকরের তোড়জোড়। অবশ্য শেষ আইনি সুযোগ হিসেবে এটিএম আজহারুল ইসলাম তার অপরাধ স্বীকার করে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন জানাতে পারবেন। সেটি না করা হলে বা প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ হলে তাকে ফাঁসির দড়িতে ঝোলানোর ক্ষেত্রে আর কোনো বাধা থাকবে না। তবে রিভিউ আবেদনের নিষ্পত্তি পর্যন্ত আদালতের আইনি প্রক্রিয়া শেষ৷ 

ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত রিভিউর প্রক্রিয়া তুলে ধরে বলেন, আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর রিভিউ আবেদনের জন্য ১৫ দিন সময় পাবেন আজহার। এ সময়ের মধ্যেই তাকে রিভিউ আবেদন করতে হবে। রিভিউ আবেদনে যদি দণ্ড বহাল থাকে, তাহলে রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা বা প্রাণভিক্ষার সুযোগ পাবেন তিনি। তবে এক্ষেত্রে তাকে অপরাধ স্বীকার করে প্রাণভিক্ষা চাইতে হবে। 

তিনি বলেন, শেষ পর্যন্ত যদি প্রাণভিক্ষার আবেদনও খারিজ হয়, তাহলে সরকার যেকোনো দিন দণ্ড কার্যকর করতে পারবে। কারাবিধির নিয়ম হলো ২১ থেকে ২৭ দিনের মধ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করতে হয়। তবে মানবতাবিরোধী ট্রাইব্যুনালের ক্ষেত্রে এ নিয়ম প্রযোজ্য নয়। এখানে সরকার যখন খুশি দণ্ড কার্যকর করতে পারে।

উল্লেখ্য, মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলা চূড়ান্ত নিষ্পত্তির পর এ পর্যন্ত ছয়জনের ফাঁসির রায় কার্যকর করা হয়েছে। এরা হলো-জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী, জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামান, আব্দুল কাদের মোল্লা ও জামায়াতের নির্বাহী পরিষদ সদস্য মীর কাসেম আলী।

জামায়াতের নায়েবে আমির দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীর আপিল নিষ্পতি হয়েছে। মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় তিনি আমৃত্যু কারাদণ্ড ভোগ করছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে