আক্রান্তদের পাশে যখন কেউ থাকে না তখনই ছুটে আসেন ওসি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ১৯ ১৪২৭,   ১১ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

আক্রান্তদের পাশে যখন কেউ থাকে না তখনই ছুটে আসেন ওসি

জীবননগর (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪০ ৩ জুন ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে যখন স্বজনরা মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন ঠিক সেই মুহূর্তে নিজের জীবন বাজি রেখে আর্তমানবতার সেবায় এগিয়ে আসছেন জীবননগর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম। তার নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যদের পেয়ে হতাশার ছাপ কাটিয়ে বেঁচে যাওয়ার আশায় নতুন স্বপ্ন দেখছেন আক্রান্ত ব্যক্তি ও তার পরিবার। আর এভাবেই মানব সেবার এক অনন্য দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছেন জীবননগর থানা পুলিশ।

করোনা পরিস্থিতি সারাদেশে যখন থমকে দাঁড়ায় এবং সরকার ঘোষিত লকডাউনে সমাজের অসহায়, দুস্থ,হ তদরিদ্র ও কর্মহীন মানুষগুলো দিশেহারা হয়ে পড়েন এ অবস্থায় বিপর্যস্ত মানু গুলোর পাশে দাঁড়ায় পুলিশ। পুলিশ প্রথমে খাদ্য সহায়তা দিয়ে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করার পর পুলিশ মানবতার আরেক ধাপ এগিয়ে করোনা আক্রান্ত ব্যাক্তিদের খাদ্য সহায়তার পাশাপাশি তাদের নিবিড় পরিচর্যাসহ সব ধরনের সেবায় এগিয়ে আসে জীবননগর থানা পুলিশ।

করোনা পরিস্থিতিতে মানবতার ফেরিওয়ালা চুয়াডাঙ্গার সুযোগ্য এসপি জাহিদুল ইসলামের নির্দেশে জীবননগর থানার ওসি সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম দিনে রাতে সরাসরি অসহায় ও আক্রান্ত ব্যাক্তিদের পরিবারে খাদ্য সহায়তা দিয়ে আসছেন। শুধু খাদ্য সহায়তায়ই নয় কর্মহীন পরিবারে অসহায় বয়ষ্কদের পান-সুপারি, ওষুধ পৌঁছে দেয়ারও দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

এদিকে আক্রান্ত ব্যক্তি ও পরিবার যখন স্বজন, প্রতিবেশী, সমাজ বিচ্ছিন্ন হয়ে হতাশায় দিন কাটানো পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়িয়ে তাদেরকে সান্ত্বনা দিয়ে মানসিক শক্তি জুগিয়ে যাচ্ছেন। এমনকি আক্রান্ত পরিবারের কোনো সমস্যা থাকলে তার সমাধানও পুলিশ আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন।

সম্প্রতি জীবননগর পৌর এলাকার সুবলপুরে আশরাফুল ইসলাম নামের এক যুবকের শরীরে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হলে পরিবারটি প্রতিবেশী ও সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এ অবস্থায় পরিবারটির বাড়ির টিউবওয়েল বিকল হয়ে পড়লে তারা বেকায়দায় পড়ে। ব্যাপারটি জীবননগর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম জানতে পেরে তাৎক্ষণিক পুলিশের একটি টিমসহ হাজির হয় ওই পরিবারে এবং পুলিশের নিজস্ব পিপিই মিস্ত্রিকে পরিয়ে টিউবওয়েলটি মেরামতের মাধ্য‌মে পরিবারটির পানি সংকটের নিরসন করেন।

এ ব্যাপারে জীবননগর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকেই এ পর্যন্ত লকডাউনে থাকা কর্মহীন অসংখ্য মানুষকে পুলিশের পক্ষ থেকে খাদ্য সহায়তা দিয়ে আসছি। অন্যদিকে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে ১৭ জন ব্যক্তির শরীরে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হওয়ার পর ওই সব পরিবারের খাদ্য সহায়তার পাশাপাশি তাদের মানসিক শক্তি জোগাতে সব ধরনের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছি। পুলিশ জনতার বন্ধু তাই পুলিশ সবসময় জনগণের পাশে থাকবে এটাই চরম সত্যি।  আর সেই দৃষ্টিকোন থেকে করোনা পরিস্থিতিতে বিপর্যস্ত মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ