Alexa অ্যান্ড্রয়েডের ১০ বছর

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৩ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৮ ১৪২৬,   ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

অ্যান্ড্রয়েডের ১০ বছর

রাজ চৌধুরী

 প্রকাশিত: ১২:১০ ১২ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১২:১০ ১২ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

অ্যান্ড্রয়েড। বর্তমান সময়ে এমন কেউ হয়তো নেই যে একবারের জন্য হলেও শব্দটি শোনেনি। অ্যান্ড্রয়েড হচ্ছে মোবাইল বা ট্যাব ব্যবহারকারীদের সবচেয়ে জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেম। এই জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেমটির মালিকানায় রয়েছে গুগল। ২০০৫ সালে গুগোল প্রাইমারি ডেভলপারদের কাছ থেকে অ্যান্ড্রয়েডের মালিকানা কিনে নেয়। মূলত গুগলই এই অ্যান্ড্রয়েডের বিভিন্ন নতুন ভার্সন রিলিজ ও ডেভলপমেন্টের কাজ করে থাকে। এসব কাজে গুগলকে সহায়তা করে থাকে ওপেন হ্যান্ডসেট এলায়েন্স। কিছুদিন আগে অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েডের ১০ বছর পূর্ণ হয়েছে। এই দশ বছরে গুগল আলাদা আলাদা অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন রিলিজ করেছে।

অ্যান্ড্রয়েড ১.০: ২০০৮ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর অ্যান্ড্রয়েডের প্রথম বাণিজ্যিক ভার্সন অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান পয়েন্ট জিরো মুক্তি পায়। অ্যান্ড্রয়েড ১.০ এর আলাদা কোনো নাম ছিলো না। অ্যান্ড্রয়েড ১.০ ব্যবহারকারী প্রথম বাণিজ্যিক ফোনটি ছিল এইচটিসি ড্রিমস। পরবর্তীতে অ্যান্ড্রয়েড ১.১ রিলিজ হলেও এটির কোনো আলাদা নাম দেয়া হয়নি। 

অ্যান্ড্রয়েড ১.৬ ডোনাট: ২০০৯ সালে এই অ্যান্ড্রয়েড ১.৬ বা অ্যান্ড্রয়েড ডোনাট ভার্সনটি বাণিজ্যিকভাবে মুক্তি পায়। ভার্সনটির বিশেষত্ব ছিলো টেক্সট টু স্পিচ সাপোর্ট। মোবাইলের বড় স্ক্রীন সাপোর্টও ছিল এই ভার্সনটির আরেক বিশেষত্ব।

অ্যান্ড্রয়েড ২.০ বা এক্লেয়ার: ২০০৯ সালের অক্টোবরে অ্যান্ড্রয়েডের ২.০ ভার্সনটি মুক্তি পায়। এটির নামকরণ করা হয় বিশেষ চকলেট পেস্ট্রি এক্লেয়ারের নামে। এর ছোটখাটো কিছু সমস্যা থাকায় মাস দুয়েক পরে ডিসেম্বরে অ্যান্ড্রয়েড ২.০.১ মুক্তি পায়। 

অ্যান্ড্রয়েড ২.৩ জিঞ্জারব্রেড: আদার স্বাদযুক্ত কুকি-র নামে নামকরণ করা এই ভার্সনটি অন্যান্য সংস্করণগুলো তুলনায় আলাদা হবার কারণ হচ্ছে বিভিন্ন আলাদা ক্যামেরার সংযোজন ও এস আই পি ইন্টারনেট কলিং সুবিধা থাকা, পাশাপাশি ডাউনলোড ম্যানেজার ও বিভিন্ন সেন্সর যোগ হওয়া।

অ্যান্ড্রয়েড ৩.০ হানিকম্ব: গুগল ২০১১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে এই অ্যান্ড্রয়েড ৩.০ মুক্তি দেয়, যেটির নাম দেয়া হয়েছিল হানিকম্ব। এই ভার্সনটি মূলত ট্যাবলেট এর জন্য মুক্তি দেয়া হয়েছিলো এবং দ্রুতই ৩.১ এবং ৩.২ ভার্সনগুলো বাণিজ্যিকভাবে বাজারে উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।

অ্যান্ড্রয়েড ৪.০ আইসক্রিম স্যান্ডউইচ: এটির আগে মুক্তি পাওয়া শুধু ট্যাবলেট ভার্সনগুলোর জন্য যে এন্ড্রয়েড ভার্সনগুলো রিলিজ হয়েছিল, তার সাথে সংযুক্তি বজায় রেখে অ্যান্ড্রয়েডের ৪.০ বা আইসক্রিম স্যান্ডউইচ ভার্সনটি রিলিজ করে গুগল। 

অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪ কিটক্যাট: ২০১৩ সালে মুক্তি পাওয়া এই অ্যান্ড্রয়েডের নামকরণ করা হয় অ্যান্ড্রয়েড কিটক্যাট। নেসলে কোম্পানি এই ভার্সনটি রিলিজের সার্বিক সহায়তা এবং বিভিন্ন ক্যাম্পেইন করে। যদিও প্রথমে এ ভার্সনটির নাম ভাবা হয়েছিল ‘কি লাইম পাই’, কিন্তু এই নামটি রাখা হয়নি কারণ কি লাইম পাই জনপ্রিয় মিষ্টান্ন ছিলো না। তাই গুগল চেয়েছিলো এমন একটি নাম রাখতে যেটি সবারই পরিচিত এবং সেজন্যই পরবর্তীতে রিলিজের সময় এর নাম রাখা হয় কিটক্যাট। সে সময় গুগোল নেসলে গ্রুপ অব কোম্পানির সাথে ও ব্যবসায়িক পার্টনারশিপ তৈরি করে।

অ্যান্ড্রয়েড ৫.০ ললিপপ: অ্যান্ড্রয়েডের এ ভার্সনটি মুক্তি পায় ২০১২ সালের নভেম্বরে। অ্যান্ড্রয়েড ললিপপ ভার্সনটির মাধ্যমে অ্যান্ড্রয়েড সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। শুধুমাত্র মোবাইল ও ট্যাবের অপারেটিং সিস্টেম হওয়া ছাড়াও স্মার্ট টিভি এবং স্মার্ট ঘড়িতে ও অ্যান্ড্রয়েডের ব্যবহার বিস্তৃতি লাভ করেছিল অ্যান্ড্রয়েড ললিপপ ভার্সন। ব্যাটারি সেভিং ফিচার ছিলো এই ভার্সনটির বিশেষত্ব।

অ্যান্ড্রয়েড ৬.০ মার্শমেলো: অ্যান্ড্রয়েড ৬.০ বা এন্ড্রয়েড মার্শমেলো রিলিজ হবার পরে এর অ্যান্ড্রয়েড কোড নাম হয় ‘M’। এর আগের অ্যান্ড্রয়েড ভার্সনগুলোতে মোবাইল ব্যবহার না করলেও মোবাইলের ব্যাটারি কমতে থাকতো। এই ভার্সনটিতে এই সমস্যার সমাধান করা হয়। এই সংস্করণের মাধ্যমে মোবাইলের ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ব্যবহার করাও সম্ভব হয়েছিলো।

অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ নোগাট: ২০১৬ সালের আগস্ট মাসে মুক্তি পাওয়া এই ভার্সনটির নাম রাখা হয় নোগাট। যার কোড নাম ছিলো অ্যান্ড্রয়েড ‘N’। এটির বিশেষত্ব ছিলো ভার্চুয়াল রিয়েলিটির সাপোর্ট। তাছাড়াও মাল্টিটাস্কিং এর জন্যও উপযোগী করে তৈরী করা হয়েছিলো এই ভার্সনটি।

অ্যান্ড্রয়েড ৮.০ ওরিও: ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে অ্যান্ড্রয়েডের ওরিও ভার্সনটি মুক্তি পায়, যেটির কোড নাম অ্যান্ড্রয়েড ‘O’। ইউনিকোড ১০.০ ইমোজি সাপোর্ট সহ পিকচার ইন পিকচার ফিচার এ ভার্সনটির বিশেষত্ব। তাছাড়াও ‘মালটি-কালার’ নোটিফিকেশন সেটিং অ্যান্ড্রয়েড ওরিও আর একটি বিশেষত্ব।

অ্যান্ড্রয়েড ৯.০ পাই: এটি অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ সংস্করণ। ভার্সনটি মুক্তি পায় ২০১৮ সালের ৬ আগস্ট। এই ভার্সনটি নিয়ে এখনো অনেকের আগ্রহ বেড়েই চলছে।

ডেইলিবাংলাদেশ/এনকে