ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,   ফাল্গুন ৮ ১৪২৫,   ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪০

অস্ত্রসহ ইউপিডিএফ নেতার আত্মসমর্পণ

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৯:২৯ ৬ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৯:২৯ ৬ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

খাগড়াছড়িতে বিদেশি পিস্তল ও গুলিসহ ইউপিডিএফ’র নেতা (প্রসীত খীসা) আনন্দ চাকমা সেনাবাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন।

বুধবার রাতে খাগড়াছড়ির মহালছড়ি সেনা জোনের (মৃত্যুঞ্জয়ী পঁচিশ) অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মোসতাক আহম্মেদের কাছে আত্মসমর্পণ করেন। তিনি ব্যবহৃত ৭.৬৫ এম এম পিস্তল ও ৩ রাউন্ড গুলি জমা দেন। আত্মসমর্পণকারী দীঘিনালার মনোরঞ্জন চাকমার ছেলে। তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তি বিরোধী সংগঠনের বিচার ও সাংগঠনিক পরিচালক পদে ছিলেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে আনন্দ চাকমা জানান, আদর্শহীন ইউপিডিএফ’র খুন, গুম, অপহরণ, চাঁদাবাজির কারণে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে অস্ত্র সমর্পণ করেছি। সরকার ঘোষণা দিলে এ সংগঠনের অনেক নেতাকর্মী অস্ত্র ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবে।

প্রসীত বিকাশ খীসা’র নেতৃত্বাধীন ইউপিডিএফ’র কাছে একে-৪৭, এসএমজি, চাইনিজ রাইফেল, এলএমজি, একাশি ও এম-১৬-এর মতো বিপুল ভারী আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে জানিয়ে আনন্দ চাকমা বলেন, জীবনের ৩০ বছর আমি জঙ্গলে জঙ্গলে ঘুরে জীবন যাপন করেছি। সংগঠন আজ আদর্শ বিচ্যুত। তারা রাহাজানি, অত্যাচার, লুটপাট, গুম, খুন শুরু করেছে। অধিকার আদায়ের নামে এসব কর্মকান্ড আদর্শকে বাধাগ্রস্ত করেছে। তারা নিজেদের আখের গোছাতে ব্যস্ত।

আমার মত অনেকেই স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চায়। কিন্তু ইউপিডিএফ হত্যার ভয় দেখাচ্ছে। এ জন্য তারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারছে না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ