Alexa অসহযোগ আন্দোলন অব্যাহত ছিল

ঢাকা, সোমবার   ১৪ অক্টোবর ২০১৯,   আশ্বিন ২৯ ১৪২৬,   ১৪ সফর ১৪৪১

Akash

১৩ মার্চ, ১৯৭১

অসহযোগ আন্দোলন অব্যাহত ছিল

স্বরলিপি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৩:১০ ১৩ মার্চ ২০১৯   আপডেট: ১৩:৩২ ১৩ মার্চ ২০১৯

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

১৯৭১ সালের ১৩ মার্চেও অসহযোগ আন্দোলন অব্যাহত ছিল। ওদিকে ৭মার্চের পর থেকেই দেশবাসী ও বিশ্ববাসী জেনে গিয়েছিলেন যুদ্ধ আসন্ন। চলছিল মিছিল, মিটিং। অন্যদিকে স্বদেশে বিদেশি দখলদার বাহিনীর হাতে জীবন দিচ্ছিল মুক্তিকামী-সংগঠিত বাঙালি।

উল্লেখ করা প্রয়োজন, চীফ মার্শাল ল’ এড মিনিস্ট্রেটর লেঃ জেনারেল টিক্কা খান এস, পি, কে-কে ৬মার্চেই পূর্ব পাকিস্তানের গর্ভনর নিয়োগ করেন, এবং নতুন দায়িত্বভার গ্রহণের পর ৭ মার্চে তিনি ঢাকা পৌঁছান। কিন্তু নব- নিযুক্ত সামরিক গভর্নরের শপথ অনুষ্ঠান  পরিচালনা করতে রাজী হননি কোন বিচারপতি। শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশনা মেনে নিয়ে তারা শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করা থেকে বিরত থাকেন।

যদিও তাকে শপথ বাক্য পাঠ করানোর জন্য সামরিক সরকারের চেষ্টার কোন ত্রুটি ছিল না। ১১ মার্চ একজন মেজরের নেতৃত্বে বিচারপতি সিদ্দিকীর বাড়ি ঘিরে ফেলা হয়। সঙ্গে ছিল কমান্ডো দল। মেজর বলেন, আপনাকে যেতে হবে।
বিচারপতি সিদ্দিকীর স্ত্রী তখন ছিলেন মরণাপন্ন। বাড়ি ভর্তি লোকের সামনে বিচারপতি সিদ্দিকী বলেন, যাবো না, যা পারো করো। পরে টিক্কা নিজে টেলিফোন করে বলেন, আপনার গোটা ফ্যামিলিকে আমি ক্যান্টনমেন্টে এনে রাখবো। বিচারপতির উত্তর ছিল, তা রাখতে পারেন কিন্তু শপথ গ্রহণ করাতে যাবো না।

সকাল নেই, বিকেল নেই এমনটি রাত নয়টা-দশটা পর্যন্ত মিছিল চলছিল শহরে শহরে।

সূত্র : অসহযোগ আন্দোলন, একাত্তর : রশীদ হায়দার।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ