তিতাসে ৫ লাখ টাকায় আওয়ামী লীগ নেতা হত্যা

.ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৫ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১২ ১৪২৬,   ১৯ শা'বান ১৪৪০

তিতাসে ৫ লাখ টাকায় আওয়ামী লীগ নেতা হত্যা

 প্রকাশিত: ২১:৩৯ ২ নভেম্বর ২০১৮   আপডেট: ২১:৩৯ ২ নভেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

কুমিল্লার তিতাসের আওয়ামী লীগ নেতা হাজী মনির হোসেন হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে ছিল একই গ্রামের মমতাজ হোসেন হত্যাকাণ্ড এবং এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের ঘটনা। বিগত প্রায় ১৫ বছর মমতাজের ভাই জাহাঙ্গীর আলম ও অন্যান্য আসামি ৫ লাখ টাকা চাঁদা তুলে ভাড়াটে খুনি এনে খুন করেন হাজী মনিরকে। 

মামলার প্রধান আসামি ও ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর আলম বৃহস্পতিবার নারায়নগঞ্জ থেকে ডিবি পুলিশ গ্রেফতারের পরই আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। শুক্রবার কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো: জালাল উদ্দিনের আদালতে হত্যার পরিকল্পনা,খুনি ভাড়ায় করা, হত্যার কারণ ও জড়িত অপর আসামিদের নাম জানানো হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও ডিবির এসআই সহিদুল ইসলাম পিপিএম। জাহাঙ্গীর আলম তিতাসের ভাটিপাড়া গ্রামের আবদুল মজিদের ছেলে। 

চলতি বছরের ২৪ মার্চ রাত সাড়ে ৮টার দিকে আওয়ামী লীগ নেতা হাজী মনির হোসেনকে তিতাসের ভাটিপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বারান্দায় গুলি এবং পরে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পরদিন রাতে নিহতের ছেলে আইনজীবী মো. মুক্তার হোসেন নাঈম বাদী হয়ে তিতাস থানায় মামলা করেন। মামলায় জগতপুর ইউপি ২ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার জাহাঙ্গীর আলম ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার কাজী আশেক, নবীর হোসেনসহ ১৮ জনের নামসহ অজ্ঞাত আরো ১৫ জনকে আসামি করা হয়। ২৬ মার্চ এসপির নির্দেশে মামলাটি ডিবিতে হস্তান্তর হয়। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও ডিবির এস আই সহিদুল ইসলাম পিপিএম বলেন,আদালতে জাহাঙ্গীরের জবানবন্দীতে চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে। এসব তথ্য যাচাই-বাছাই বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। এরইপূর্বে মামলায় মমতাজ হোসেনের স্ত্রী বিলকিস বেগমসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম