অবৈধ অভিবাসীদের জন্য ‘সিটি কার্ড’ দিচ্ছে মাদ্রিদ

ঢাকা, রোববার   ১৬ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ২ ১৪২৬,   ১১ শাওয়াল ১৪৪০

অবৈধ অভিবাসীদের জন্য ‘সিটি কার্ড’ দিচ্ছে মাদ্রিদ

 প্রকাশিত: ১৪:০০ ২০ জুলাই ২০১৮   আপডেট: ১৪:০০ ২০ জুলাই ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

মাদ্রিদে অবৈধ অভিবাসীদের জন্য ‘সিটি কার্ড’ চালু করেছে মাদ্রিদ সিটি কর্পোরেশন। সিটি কর্পোরেশনের ‘পাইলট প্ল্যান’ এর অংশ হিসেবে মাদ্রিদে অবৈধ অভিবাসীদের এই কার্ড  প্রদান করা হবে। 

বুধবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টায় সিটি কর্পোরেশনের ওকা সেন্ত্র অফিসে এ কার্ড প্রদানের কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়। সিটি কর্পোরেশনের প্রথম ডেপুটি মেয়র মার্তা ইগেরাস অনুষ্ঠানের কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।  প্রথম দিনেই ১৩জন অভিবাসীদের এই কার্ড প্রদান করা হয়। এদের মধ্যে ৭জনই বাংলাদেশী ছিলেন। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডেপুটি মেয়র মার্তা ইগেরাস বলেন, সম্পূর্ন বিনামূলে ‘সিটি কার্ড’ প্রদান করা হচ্ছে। মাদ্রিদে বসবাসরত অভিবাসীরা সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন। পরবর্তীতে শহরের অন্যান্য জায়গায়ও এ সুযোগ প্রদান করা হবে।

এছাড়া  সিটি কার্ড প্রদানের প্রস্তাবকে অনুমোদন দেয়ায় স্পেনের নতুন ক্ষমতাসীন দল সোশ্যালিস্ট পার্টিকেও ধন্যবাদ জানান মার্তা ইগেরাস।

‘সিটি কার্ড’ প্রদানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মাদ্রিদ সিটি কর্পোরেশনের ডেপুটি মেয়র খরখে গ্রাসিয়া কাস্তানিয়ো, যোগাযোগ সমন্বয় বিষয়ক প্রধান ও কাউন্সিলর পাবলো সতো এবং স্পেনের ক্ষমতাসীন দল সোশ্যালিস্ট পার্টির মুখপাত্র পুরিফিকাসিয়ন কাউসাপিয়ে।

কাউন্সিলর পাবলো সতো তার বক্তব্যে মাদ্রিদ শহরের অধিবাসী হিসেবে কার্ড প্রাপ্ত ১৩জনকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশনের কার্ড অধিবাসীদের সুন্দর ভবিষ্যত রচনায় সহযোগিতা করবে। 

কাউন্সিলর পাবলো সতো আরো বলেন, ‘সিটি কার্ড’ অনথিভুক্ত অভিবাসীদের সিটির বাসিন্দা হিসেবে স্বীকৃতি দিবে। এর মাধ্যমে কার্ড প্রাপ্তরা সিটি কর্পোরেশন এর অন্তর্ভুক্ত সুযোগ সুবিধাগুলো পাবেন। বিশেষ করে বিনামূল্যে মেডিকেল সুবিধা, কর্মমূখী প্রশিক্ষণ গ্রহণ ছাড়াও সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া কার্যক্রমে সম্পৃক্ত হতে পারবেন তারা। দুই বছর মেয়াদি এ কার্ডে কাজ করার অনুমতি বা অন্য দেশে ভ্রমণের কোন অনুমতি প্রদান করা হবে না বলেও তিনি জানিয়েছেন।

সোশ্যালিস্ট পার্টির মুখপাত্র পুরিফিকাসিয়ন কাউসাপিয়ে বলেন, আজ মাদ্রিদে বসবাসরত অভিবাসীদের জন্য বিশেষ একটি দিন। যারা সিটি কার্ড পাবেন, তারা নিজেদের মাদ্রিদের অধিবাসী হিসেবে ভাবতে পারবেন।

এ ছাড়া উক্ত অনুষ্ঠানে মাদ্রিদের অভিবাসীদের নিয়ে কাজ করা বাংলাদেশি সংগঠন ‘ভালিয়েন্তে বাংলা’র সভাপতি ফজলে এলাহি উপস্থিত ছিলেন। আরো উপস্থিত ছিলেন,৩৫ব  0 সাধারন সম্পাদক রমিজ উদ্দিন, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সুন্দর, গ্রেটার সিলেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি লুতফুর রহমান, স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্য কবির আল মাহমুদ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রথমদিন যে ৭জন অভিবাসী সিটি কার্ড পেয়েছেন, তারা হলেন বাংলাদেশের নাফরিন আরা লোপা, আইয়ূব চুন্নু মিয়া, আব্দুল গাফফার, মো: সাইফুর রহমান, তালুকদার সিফাত ও  মোবারক মিয়া এবং চীনের মিউসিউ জাঙ। এরা সবাই অভিবাসীদের নিয়ে কাজ করা বাংলাদেশি সংগঠন ‘ভালিয়েন্তে বাংলা’র মাধ্যমে সিটি কার্ড এর জন্য আবেদন করেছিলেন।  

‘সিটি কার্ড’ প্রাপ্তির প্রক্রিয়া: 
বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হয়েছে এমন ব্যক্তি যেকোন সনাক্তকরণ ডকুমেন্ট (যেমন পাসপোর্ট) এবং মাদ্রিদে বসবাসের সনদ (এমপাদ্রনামিয়েন্তো)  নিয়ে সিটি কর্পোরেশনে আবেদন করতে পারবেন। আবেদনের জন্য মাদ্রিদ সেন্টারের যেকোন ‘লিনিয়া মাদ্রিদ’ এর অফিসে স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে অথবা টেলিফোনে ০১০-৯১৫২৯৮২১০ (যদি মাদ্রিদ সিটির বাইরে থেকে কল করা হয়) এপোয়েন্টমেন্ট নিতে হবে। 

তবে মাদ্রিদ সেন্টারে সিটি কর্পোরেশন অনুমোদিত ‘ভালিয়েন্তে বাংলা’ সংগঠনের মাধ্যমে কোন ফি ছাড়াই আবেদন করা যাবে। এ সংগঠনের সভাপতি ফজলে এলাহি জানান, ইতোমধ্যে সিটি কার্ড এর জন্য বাংলাদেশ, আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ ও চীনের ৬৩ জন অভিবাসীর আবেদনপত্র তারা পেয়েছেন। বিনামূল্যে বসবাসের সনদসহ সার্টিফিকেট এর ব্যবস্থা করে সিটি কর্পোরেশনের লিনিয়া মাদ্রিদে তাদের আবেদনপত্র জমা দেয়ার জন্য এপোয়েন্টমেন্টও নেয়া হয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে স্পেনে প্রথম শহর হিসেবে বার্সেলোনা সিটি কর্পোরেশন  অবৈধ অভিবাসীদের জন্য ‘সিটি অধিবাসী কার্ড’ এর ঘোষণা দিয়েছিল। কিন্তু সেজন্য অনেকগুলো শর্ত থাকায় অনেক অভিবাসী সে কার্ড পেতে ব্যর্থ হোন।

ডেইলি বাঙলাদেশ/টিএএস