Alexa অবস্থান হারাচ্ছে জাতীয় পার্টি

ঢাকা, বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯,   কার্তিক ২ ১৪২৬,   ১৭ সফর ১৪৪১

Akash

রংপুর-৬

অবস্থান হারাচ্ছে জাতীয় পার্টি

 প্রকাশিত: ১৭:৫১ ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

রংপুরের সবচেয়ে বড় গুরুত্বপূর্ণ এলাকা পীরগঞ্জ উপজেলা। এক সময়ে এখানে জাতীয় পার্টির প্রভাব ছিল। এখন আর তা নেই। এখানে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির ইউনিয়ন এবং পৌর কমিটি রয়েছে। তবে সাংগঠনিক দিক দিয়ে বিএনপি ও জাতীয় পার্টির তেমন কর্মকাণ্ড নেই।

১৫ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত এই উপজেলা জাতীয় সংসদের (রংপুর-৬) আসন হিসেবে পরিচিত।

২০০০ সালের পর থেকে এখানে আওয়ামী লীগ শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। ‘৯৬ সালের নির্বাচনে শেখ হাসিনা সংসদ নির্বাচনে পরাজিত হয়েছিলেন জাতীয় পার্টির নুর মোহাম্মদ মন্ডলের কাছে। নুর মোহাম্মদ মন্ডল পরে বিএনপিতে যোগ দেন।

বর্তমানে এ আসনের এমপি স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী। তবে উপজেলার সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করেন পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র তাজিমুল ইসলাম শামীম। মূলত তার নিয়ন্ত্রণে চলে দল ও প্রশাসন।

আওয়ামী লীগের পর জাতীয় পার্টির অবস্থান। কিন্ত দলে উল্লেখযোগ্য নেতা না থাকায় এলাকার মানুষ জাতীয় পার্টির উপর থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। জাতীয় পার্টির অবস্থান দিন দিন নিচের দিকে যাচ্ছে।

এদিকে, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সড়ক পথে রংপুর এলে পীরগঞ্জে যাত্রা বিরতি করেন। পথসভায় বক্তব্য দেন। এর বেশি জাতীয় পার্টির কোন সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড নেই।

উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক নুরে আলম যাদু জানান, দল আগের চেয়ে শক্তিশালী এখন নির্বাচন হলে জাতীয় পার্টির প্রার্থীই জয়লাভ করবেন।

অপরদিকে বিএনপি দ্বিধাবিভক্ত। এক গ্রুপের নেতৃত্বে আছেন বর্তমান উপজেলা চেয়াম্যান নুর মোহাম্মদ মন্ডল। অপরটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন তারেক জিয়ার ঘনিষ্ট সাইফুল ইসলাম। মূলত এ দু’জনের যাঁতাকলে বিএনপির কর্মী সমর্থকদের ত্রাহি অবস্থা। তাদের সাংগঠনিক অবস্থাও অত্যন্ত দুর্বল। কেন্দ্রীয় কর্মসূচিও তেমন একটা পালন হয় না।

পীরগঞ্জে বিএনপির নেতাকর্মী খুঁজে পাওয়া কষ্টকর। নেই তাদের কোন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড। কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচিও পালন হয় না। বিভিন্ন কমিটি থাকলেও দ্বন্দ্বের কারণে সাংগঠনিক অবস্থা নেই বললেই চলে। বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময় উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে বিএনপি সাংগঠনিক অবস্থা ভাল ছিল। বর্তমানে জামায়াতেরও পরে তাদের অবস্থান।

উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম জানান, দলে কোনো দ্বন্দ্ব নেই।

বর্তমান সরকারের দমননীতির কারণে আমরা সাংগঠনিক কাজকর্ম করতে পারছি না। মিছিল সমাবেশ করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। সরকারের কর্মকাণ্ডে মানুষ বিএনপির পতাকা তলে আসতে শুরু করেছে।

>>>কাল থাকছে রংপুর-১ আসনের রাজনীতি...

ডেইলি বাংলাদেশ/আজ/এমআরকে