Alexa অবশেষে সেই ‘গাছ খেকো’ নারী আটক

ঢাকা, শনিবার   ২৩ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রহায়ণ ৮ ১৪২৬,   ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

অবশেষে সেই ‘গাছ খেকো’ নারী আটক

সোশ্যাল মিডিয়া ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:২৮ ২৩ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১৪:২৬ ২৩ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

অবশেষে সেই ‘গাছ খেকো’ খালেদা আক্তার লাকীকে (৩৯) আটক করেছে পুলিশ। ওই নারী ক্ষোভের বশে অপর এক নারীর ছাদবাগানের সব গাছ কেটে সাফ করে দিয়েছিলেন।

এদিকে সাভারের সিআরপি এলাকায় এই ঘটনার পরপরই ভুক্তভোগী সুমাইয়া হাবিব নামের ওই নারী পুরো বিষয়টি ফেসবুকে ভিডিওসহ পোস্ট করেন। পরে এটি ভাইরাল হয়ে যায়।

এতে গাছপ্রেমী অনেকেই ক্ষোভে ফুঁসে উঠেন। ওই পোস্টে অনেকেই নানা ধরনের মন্তব্য করেছেন। কেউ কেউ ওই নারীকে ‘গাছ খেকো’ আখ্যা দিয়ে তার বিচারও দাবি করেছেন।

এদিকে আটকের সময় সাংবাদিকরা ওই নারীর অনুভূতি জানতে চান। সে সময়  ওই নারী জানান, তিনি ক্ষোভের বশে এই কাজ করেছেন। এই ঘটনার জন্য তিনি অনুতপ্ত।

এর আগে সুমাইয়া হাবিব নামের ভুক্তভোগী ওই নারী ফেসুবকে নিজের গাছের ওপর এমন বর্বর আচরণের ভিডিও আর বিবরণ পোস্ট করেন। সুমাইয়া হাবিব জানান, একপর্যায়ে তাকে দা দিয়ে আঘাত করতে উদ্যত হন সব গাছ কেটে ফেলা ওই নারী। 

সুমাইয়া লিখেছেন, কখনো কি শুনছেন মানুষ গাছ অপছন্দ করে? গাছ পরিবেশ নষ্ট করে? এই নারীর গাছ পছন্দ না। তার বক্তব্য আমাদের গাছ ছাদের পরিবেশ নষ্ট করে ফেলছে। তাই এই নারী আমাদের সব গাছ কেটে ফেলছে। কি অপরাধ ছিল গাছের? কি অপরাধ ছিল? কেউ বলতে পারবেন? 

সুমাইয়া আরো লিখেছেন, আমার মা গাছ অনেক পছন্দ করে, তাই ছাদের এক কোণায় আমরা কিছু গাছ লাগাইছিলাম। আর এই নারী আমাদের সঙ্গে শত্রুতা করে আমাদের লাগানো গাছগুলা কেটে ফেলল। এই বিল্ডিংয়ে আমরা ২ টা ফ্লাট কিনেছি। সবাই যার যার ক্র‍য়কৃত ফ্লাটে থাকে। ছাদে সবারই অধিকার আছে। আমরা আমাদের অধিকার থেকে কিছু গাছ লাগিয়েছি ছাদের একটা কোণায়। কারণ আমরা ভাবতেও পারিনি গাছ মানুষ অপছন্দ করতে পারে। গাছ তো সৌন্দর্য বাড়ায়। আর তারা বলে আসছে আমাদের গাছ নাকি ছাদের পরিবেশ নষ্ট করে দিছে। 

তারা অকারণে অন্যায়ভাবে আমাদের জীবন্ত এবং ফল ধরন্ত গাছগুলি কেটে ফেললো। আবার তার ছেলে কিছু ১০/১২ জন মাস্তান নিয়ে আসছে আমাদের ওপর হামলা করার জন্য। আমাদের একটাই অপরাধ আমরা গাছ ভালোবাসি। তাই শখ করে গাছ লাগিয়েছিলাম। আমরা তো অন্যের জায়গায় গাছ লাগাই নাই। আমরা আমাদের অধিকার থেকে গাছ লাগাইছিলাম। আমার মা এই গাছগুলিরে নিজের সন্তানের মত যত্ন করে। আমরা গাছগুলোকে নিজের সন্তানের মত ভালোবাসতাম। মানুষ কীভাবে এতটা নিচে নামতে পারে? গাছ তো তাদের কোনো ক্ষতি করে নাই। পুরা ছাদই তো ফাঁকা।

এর হয়তো কোনো বিচার হবে না। তবে আল্লাহর কাছে বিচার দিলাম। আল্লাহই বিচার করবে। আপনারা এই পোস্ট প্লিজ একটু শেয়ার করবেন।

সুমাইয়া হাবিব বলেন, আমাদের তারা হিংসা করত। আমাদের এখানে দুইটা ফ্ল্যাট আর তাদের একটা। আমরা গাছ লাগাইছি দেখে তাদের গা জ্বলত। তাদের ছেলে মস্তানি করে। সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে ঘুরে বেড়ায়। সেই ছেলে আমাদের গাছ ভেঙে ফেলত। একদিন তাদের উদ্দেশ্য করে বলছিলাম, যারা আমাদের গাছ ভাঙতেছে তাদের হাত যেন অবশ হয়ে যায়। এতেই হয়তো শত্রুতা করল। 

ভিডিওটি দেখতে এখানে  ক্লিক করুন

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর/টিআরএইচ/টিএএস