.ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৫ ১৪২৫,   ১২ রজব ১৪৪০

অনেক স্বপ্ন রুবিনার...

ইদ্রিস আলম ডেইলি-বাংলাদেশ

 প্রকাশিত: ২২:৪৩ ১৩ এপ্রিল ২০১৮   আপডেট: ০৯:২৭ ১৪ এপ্রিল ২০১৮

আবার এসেছে ফিরে, বাঙালির ঘরে, নবরূপে পহেলা বৈশাখ…

আজ  শুধুই ভালবাসার উজানে,বাঙালির বর্ষবরণ নানা আয়োজনে,

রমনীরা আজ  সেজেছে নতুন সাজে,পায়ের নূপুর ঘুঙ্গুর বাজে।

নাচবে দুলে দুলে দেখবো প্রান খুলে,প্রিয়ার ভালবাসা জমা থাক।

আবার এসেছে ফিরে,বাঙালির ঘরে,নতুন সাজে পহেলা বৈশাখ।

শহরে শহরের মুক্তাঙ্গনে,কবিতা পাঠ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে;

ঢাকায় রমনার বটমূলে,সবাই নাচবে গায়বে প্রাণ খুলে।

ইলিশ ভাজি আর পান্তা ভাত,নববর্ষের রেওয়াজ হয়ে থাক।

এমন মধুর সুরে সুরে কথা হয় বর্তমান জনপ্রিয় আইটেম গার্ল রুবিনা আলমগীরের  সঙ্গে।একান্তে কথা অনেক অনেক কিছু নিয়ে।

ছোটবেলার স্বপ্নকে বুকে লালন করে বাংলা চলচ্চিত্রাঙ্গনে অল্প সময়ের মধ্যে বেশ সুনাম অর্জন করেছেন ঢাকাই অভিনেত্রী ও নৃত্যশিল্পী রুবিনা আলমগীর। পরিচিতি পান আইটেম গার্ল হিসেবেও।

একান্ত সাক্ষাৎকারে অভিনয় জগত নিয়ে নিজের স্বপ্ন-ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন রুবিনা। বলেছেন চলচ্চিত্র জগতে তার পথ চলার অনেক অজানা কথাও।চলচ্চিত্র শিল্প সম্পর্কে এখন অনেকের মনেই নেতিবাচক ধারণা কাজ করে।সেইসব মানুষের উদ্দেশ্যে রুবিনা বলেন,খারাপ দিক সবকিছুতেই আছে। একইসঙ্গে ভালো দিকও আছে। তাই ভালো দিকগুলো সবার সামনে তুলে ধরতে হবে, খারাপ কিছু করতে হবে বর্জন।তাহলেই এগিয়ে যাবে চলচ্চিত্র শিল্প।

এভাবেই এক কথা-দুই কথা আর কুশল বিনিময়ের পর আড্ডায় মেতে ওঠেন রুবিনা আলমগীর। কথায় কথায় জানান কিভাবে এলেন চলচ্চিত্রে। বাদ দেননি বছরের পর বছর ধরে লড়াই করে টিকে থাকার গল্পও।

এক যুগ ধরে সংগ্রামের সঙ্গে সফলতা অর্জন করার সেই গল্প শুনুন রুবিনার মুখেই-

প্রশ্ন:রাত পোহালেই বাংলা বছরের প্রথম দিন পহেলা বৈশাখ এদিন ঘিরে কি কি করছেন?

রুবিনা: এদিন ঘিরে আমার হাতে অনেক কাজ।বিএফডিসিতে আমি নৃত্য পরিবেশন করছি।আপনারাও আসবেন দেখতে।আরো কয়েকটি প্রোগ্রামে নৃত্য পরিবেশন করব।

প্রশ্ন:পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে আর কোন কাজ করেছেন কী?

রুবিনাঃ হ্যাঁ যায়যায়দিন পত্রিকায় বৈশাখের মডেল হিসেবে কাজ করেছি।আই মিডিয়াতে মডেল হিসাবে কাজ করলাম, বেশ কয়েকটি গানে কাজ করেছি,যার সবই ছিল বৈশাখকে ঘিরে। সবশেষ আপনাদের ভালোবাসায় আড্ডায় মেতে উঠলাম। 

প্রশ্ন:এবার আপনার পথচলার কিছু কথা জানতে চাই ক্যারিয়ার তো অন্যভাবেও গড়তে পারতেন।হঠাৎ অভিনয় জগতে কেন?

রুবিনাঃ ছোটবেলা থেকেই পড়াশোনার পাশাপাশি নাচ-গান করতে পছন্দ করতাম। স্কুলে এবং গ্রামের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানগুলোতে অংশগ্রহণ ছিল নিয়মিত।সবাই খুব পছন্দ করত,উৎসাহ দিত।সবার উৎসাহ আর পরিবারের সবার সহযোগিতায় অভিনয় জগতের পথে আসা।

প্রশ্ন:আপনার উঠে আসার পেছনে পরিবারের ভূমিকা কেমন?

রুবিনা: বাবা-মা সিনেমা দেখতে পছন্দ করতেন।আমার চলচ্চিত্র জগতে আসার পেছনে তাদের ভূমিকা অনেকটা সিনেমাটিক। বিভিন্ন সিনেমার গল্প বাবা-মায়ের মুখে শুনতে শুনতে বড় হয়েছি। ভালো লাগা থেকেই অভিনয়ে আসা।

প্রশ্ন: কখনো পারিবারিক কোনো বাধা এসেছিল?

রুবিনা: সামাজিকভাবে অনেক বাধার সম্মুখীন হতে হয়েছে। আমার পরিবারও অনেকটা কনজারভেটিভ। তবুও কাটিয়ে উঠেছি। আমার চলার পথে মায়ের সহযোগিতা সবচেয়ে বেশি পেয়েছি।

প্রশ্ন: অভিনয় জগতে তো অনেকদিন হলো,কখনো কোনো সমস্যার মুখোমুখি হয়েছেন?

রুবিনা: প্রথম প্রথম কাজ করতে গিয়ে ছোটখাটো কিছু সমস্যা হতো।খাবার খেতে পারতাম না, তেমন কাউকে চিনতাম না, অচেনা মানুষ আর অজানা পরিবেশে নিজেকে বোকা বোকা লাগত। শুরুতে মানিয়ে নিতে কষ্ট হয়েছে। তবে এখন কাজের জায়গাটিই আমার আরেকটি পরিবার,ভালো লাগার জায়গা।

প্রশ্ন: অভিনয় জগতে কখনো কঠিন কোনো অভিজ্ঞতা হয়েছে?

রুবিনা: ভালো-খারাপ সব অভিজ্ঞতাই তো আছে। সবকিছু ছাপিয়ে নিজেকে রুবিনা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছি। মিডিয়া-শুভাকাঙ্খী সবাই আমাকে যতটুকু চিনেছেন সবটাই তো অভিনয়ের বদৌলতে।সবার ভালোবাসা পেয়েছি,সবার কাছে যেতে পেরেছি এটাই জীবনের বড় প্রাপ্তি।

প্রশ্ন: এখন পর্যন্ত কার সঙ্গে কাজ করে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেছেন?

রুবিনা: অনেকের সঙ্গেই কাজ করতে সাচ্ছন্দবোধ করি। এককভাবে কারো নাম বলতে চাই না। অনেকেই ভালো অভিনয় করেন।

প্রশ্ন: বর্তমানে কি কি করছেন?

রুবিনা: সামনে বেশ কয়েকটি মিউজিক ভিডিও আসছে; আরো ২টি মিউজিক ভিডিওর জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। ১টি সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছি, ১টি’র মহরত হয়েছে; আরো ৩টি সিনেমার কাজ নিয়ে আলোচনা চলছে।

প্রশ্ন: অভিনয় জগতে এসেছেন অনেকদিন,রূপালি জগতটাকে নিয়ে কিছু ভেবেছেন?

রুবিনা: সবসময়ই ভালো কাজ করার চেষ্টা করি। সামনে যতদিন অভিনয় জগতে কাজ করবো,চেষ্টা থাকবে ভালো কাজের মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতের প্রতিনিধিত্ব করা।

বেশ কিছুক্ষণ জমপেশ আড্ডায় আরো অনেক অজানা অনুভূতি জানান রুবিনা।বিদায় নেয়ার আগে ডেইলি বাংলাদেশের পাঠকদের ধন্যবাদ জানাতেও ভুল করেননি তিনি।

আগামীর পথচলায় সফল হোন রুবিনা আলমগীর। ডেইলি বাংলাদেশের পক্ষ থেকে শুভকামনা!

ডেইলি বাংলাদেশ/এলকে

শিরোনাম

শিরোনামরাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ির ঘটনা তদন্তের পর দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা: চট্টগামে সিইসি, নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবে ইসি শিরোনামক্রাইস্টাচার্চ হামলা: মরদেহ হস্তান্তর চলছে; এখনো কোনো বাংলাদেশির মরদেহ হস্তান্তর হয়নি শিরোনামসিঙ্গাপুরে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বাইপাস সার্জারি কাল শিরোনামকুমিল্লায় হত্যা মামলায় খালেদা জিয়াকে দেয়া হাইকোর্টের জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষে আবেদন শিরোনামনর্দ্দায় সড়ক দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম, সুপ্রভাত পরিবহনের লাইসেন্স বাতিলের আশ্বাস শিরোনামরাঙ্গামাটি বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুরশে কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত শিরোনামরাজধানীর প্রগতি স্মরণীতে সড়ক দূর্ঘটনায় বিইউপির ছাত্র নিহত